১৩ ফুট উঁচুতেও বেঁচে থাকে করোনাভাইরাসের জীবাণু

মাটি থেকে ১৩ ফুট বা চার মিটার উঁচুতেও বেঁচে থাকতে পারে করোনা ভাইরাস৷ চিনের গবেষকদের এই দাবি শুক্রবার আমেরিকার সেন্টার ফর ফিজিক্স অ্যান্ড প্রিভেনসন-এর পত্রিকা এমার্জিং ইনফেকশিয়াস ডিজিস-এ প্রকাশিত হয়েছে৷

গবেষণায় পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, সবথেকে বেশি জীবাণু পাওয়া গিয়েছে হাসপাতালের ওয়ার্ডের মেঝেতে৷ গবেষকদের মতে, সম্ভবত মাধ্যাকর্ষণ শক্তি এবং হাওয়ার কারণে অধিকাংশ ভাইরাস ড্রপলেট মেঝেতে পড়ে যায়৷

এর পাশাপাশি কম্পিউটারের মাউস, বেড রোল, দরজার হাতলে সবথেকে বেশি পরিমাণে ভাইরাস পাওয়া গিয়েছে৷

শুধু তাই নয়, আইসিইউ-এর মেডিক্যাল স্টাফদের পঞ্চাশ শতাংশের জুতোর সোলেও করোনা ভাইরাসের সন্ধান মিলেছে৷ যা দেখে গবেষকরা বলেছেন, জুতোর সোল থেকেও ছড়াতে পারে করোনা৷

এর পাশাপাশি Aerosol ট্রান্সমিশন থেকেও করোনা সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন চিনের গবেষকরা৷ তাঁদের দাবি, এই অবস্থায় জীবাণুগুলি এতটাই সূক্ষ্ম হয় তা চোখে দেখা যায় না এবং কয়েক ঘণ্টা হাওয়ায় বেঁচে থাকতে পারে৷

গবেষণায় দেখা গিয়েছে, Aerosol বা সূক্ষ্ম আকারে থাকা হাওয়ায় ভাসমান এই জীবাণুর বিন্দুগুলি রোগীদের ১৩ ফুট উপর এবং নীচে পাওয়া গিয়েছে৷ যদিও হাওয়ায় ভাসমান এই জীবাণুর থেকে হাসপাতালের কোনও কর্মী সংক্রামিত হননি৷ এর থেকেই প্রমাণিত হয়েছে যে সঠিক সতর্কতা নিলে জীবাণুর উপস্থিতি সত্ত্বেও সংক্রমণ রোখা সম্ভব৷