নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন না খালেদা জিয়া: অ্যাটর্নি জেনারেল

দুর্নীতির দুই মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার ৭ বছর ও ১০ বছর কারাদণ্ডের সাজা বাতিল না হলে তিনি নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন না বলে বলে জানিয়েছেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

মঙ্গলবার (৩০ অক্টোবর) সকালে জিয়া অরফানেজ মামলায় সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার সাজা ৫ থেকে বাড়িয়ে ১০ বছর করে হাইকোর্টের দেয়া রায়ের পর তাৎক্ষণিক এক প্রতিক্রিয়ায় অ্যাটর্নি জেনারেল এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, সংবিধান অনুযায়ী কোনো আসামি দুই বছর সাজা পেলেই তার কোনো নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার সুযোগ নেই। সে হিসেবে খালেদার সাজা বাতিল না হলে তিনি নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন না।  সাক্ষ্যপ্রমাণে খালেদা জিয়া মুখ্য আসামী হিসেবে প্রমাণিত হয়েছেন, এজন্যই উনার সাজা বাড়িয়ে ১০ বছর করা হয়েছে। 

এ ব্যাপারে দুদকের আইনজীবি খুরশীদ আলম খান বলেন, সংবিধান অনুযায়ী নৈতিকতা স্খলনের দায়ে কেউ যদি দুই বছরের জন্য দণ্ডিত হন, তাহলে পরবর্তী ৫ বছর না যাওয়া পর্যন্ত তিনি নির্বাচন করতে পরবেন না। কাজেই সংবিধানের ৬৬ (২) ডি অনুচ্ছেদ অনুযায়ী নির্বাচনের প্রশ্নই আসে না। আপিল করলেও তিনি নির্বাচন করতে পারবেন না। কারণ, এখানে দুইটি আদালতের রায় হয়ে গেছে।

তিনি বলেন, আদালত তাদের তিনটি আপিলই খারিজ করে দিয়েছেন। আমাদের তিনটি আবেদন গ্রহণ করেছেন। এখন জামিন অটোমেটিকলি বাতিল হয়ে যাবে। উনার নির্বাচনে অংশ গ্রহণের প্রশ্নই আসে না। 

রায় স্থগিত হলে নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন কি না এ প্রশ্নের জবাবে দুদকের আইনজীবী বলেন, ‘সেটা পরে দেখা যাবে। তবে আপাতত তিনি (খালেদা জিয়া) নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন না।

মন্তব্য লিখুন :