আপিলে বৈধ হলেন যারা, অবৈধ থাকলেন যারা

মনোনয়নপত্র বাতিলের বিরুদ্ধে প্রার্থিতা ফিরে পেতে নির্বাচন কমিশনের আপিলের শুনানি শুরু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৬ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টা থেকে মনোনয়নপত্র বাতিলের বিরুদ্ধে প্রার্থিতা ফিরে পেতে নির্বাচন কমিশনের আপিলের শুনানি শুরু হয়।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদার নেতৃত্বাধীন কমিশন রাজধানীর আগারগাঁওয়ের নির্বাচন কমিশন ভবনের দশম তলায় স্থাপিত এজলাসে আপিল শুনানি চলছে।

আপিলে বৈধ হলেন যারা

শুনানি শুরু হয় চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ আসনের নবাব মো. শামছুল হুদার আপিলের মধ্য দিয়ে। এ দফায় আপিলেও তাঁর মনোনয়নপত্র বাতিল করে নির্বাচন কমিশন। এরপর ছিল বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বগুড়া-৭ আসনে দলের মনোনীত বিকল্প প্রার্থী মোরশেদ মিলটনের আপিলের শুনানি। শুনানি শেষে তাঁর মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করা হয়। এ সময় ঢাকা-১ আসনে খন্দকার আবু আশফাক ও ঢাকা-২০ আসনের তমিজ উদ্দিনও প্রার্থিতা ফিরে পান। তাঁরা দুজনই বিএনপির প্রার্থী।

কিশোরগঞ্জ-২ আসনে বিএনপির মনোনীত প্রার্থী মেজর (অব.) মো. আখতারুজ্জামান রঞ্জন ও পটুয়াখালী-৩ আসনে মো. গোলাম মাওলা রনির মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে। ঝিনাইদহ-২ আসনে মো. আবদুল মজিদ প্রার্থিতা ফিরে পান।

মনোনয়নপত্র বৈধ হয়েছে জামালপুর-৪ আসনে মো. ফরিদুল কবির তালুকদার (শামীম) । তিনি বিএনপির প্রার্থী। পটুয়াখালী-৩ আসনে মোহাম্মদ শাহজাহান প্রার্থিতা ফিরে পান।

মাদারীপুর-১ আসনের জহিরুল ইসলাম মিন্টু এবং সিলেট-৩ আসনের আবদুল কাইয়ুম চৌধুরীও আপিল করে সফল হয়েছেন।

আপিলে অবৈধ থকলেন যারা

চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ আসনের নবাব মো. শামছুল হুদার আপিল শুনানি দিয়ে শুরু হয়। আপিলেও তাঁর মনোনয়নপত্র বাতিল করে নির্বাচন কমিশন। এ ছাড়া এদিন অবৈধ ঘোষণা করা হয়েছে বেশ কিছুর প্রার্থীর মনোনয়নপত্র।   

তাঁরা হলেন—খাগড়াছড়ি আসনে আবদুল ওয়াদুদ ভূঁইয়া; ঝিনাইদহ-১ মো. আবদুল ওয়াহাব; সাতক্ষীরা-২ মো. আফসার আলী; চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ মো. তৈয়ব আলী; মাদারীপুর-৩ মোহাম্মদ আবদুল খালেক; দিনাজপুর-২ মোকারম হোসেন; দিনাজপুর-৩ সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম; দিনাজপুর-১ মো. পারভেজ হোসেন; ঠাকুরগাঁও-৩ এস এম খলিলুর রহমান; পাবনা-৩ মো. হাসাদুল ইসলাম; ফেনী-১ মিজানুর রহমান; কিশোরগঞ্জ-৩ ড. মিজানুল হক; ময়মনসিংহ-৪ আবু সাঈদ মহিউদ্দিন; নেত্রকোনা-১ মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম; খুলনা-২ এস এম এরশাদুজ্জামান; নাটোর-১ বীরেন্দ্রনাথ সাহা; ঢাকা-১ মো. আইয়ুব খান; বগুড়া-৩ মো. আবদুল মুহিত;  রাঙামাটি অমর কুমার দে; বগুড়া-৪ মো. আশরাফুল আলম (হিরু আলম); হবিগঞ্জ-২ মো. জাকির হোসেন; ঢাকা-১৪ সাইফুদ্দিন আহমেদ ও সাতক্ষীরা-১ এ এম মুজিবর রহমান।


মন্তব্য লিখুন :