জায়ানের লাশ আসছে কাল, গোপালগঞ্জে শোকের ছায়া

শ্রীলঙ্কায় ভয়াবহ সিরিজ বোমা হামলায় আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিমের নাতি জায়ানের লাশ আগামীকাল দেশে আনা হবে।

সোমবার (২২ এপ্রিল) বেলা সাড়ে ১১টায় শেখ সেলিমের বনানীর বাসা থেকে বের হয়ে এসে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন শিল্পমন্ত্রী।

এদিকে, জায়ান চৌধুরী (৮) নিহত হওয়ার খবরে গোপালগঞ্জের সর্বত্র শোকের ছায়া নেমে এসেছে। শেখ ফজলুল করিম সেলিমের পরিবারকে সমবেদনা জানাতে তার বাড়িতে ভীড় করছে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীসহ সাধারণ মানুষ।

জায়ান চৌধুরী নিহতের ঘটনায় শোক জ্ঞাপন ও সমবেদনা জানিয়েছেন সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম মিটু, গোপালগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি হাসমত আলী সিকদার চুন্নু, সাধারণ সম্পাদক সিকদার মো. নজরুল ইসলাম, টুঙ্গিপাড়া আওয়ামী লীগের সভাপতি ইলিয়াস হোসেন, টুঙ্গিপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান সোলায়মান বিশ্বাস ও টুঙ্গিপাড়ার পৌর মেয়র শেখ আহমেদ হোসেন মীর্জা নেতাকর্মীরা।

শেখ সেলিমের ব্যক্তিগত সহকারী ইমরুল হক বলেন, জায়ানের মরদেহ দেশে আনতে এই মুহূর্তে শ্রীলঙ্কায় অবস্থান করছেন শেখ সেলিমের স্ত্রী এবং দুই ছেলে শেখ ফজলে ফাহিম ও শেখ ফজলে নাঈম। জায়ান চৌধুরী সোমবার শ্রীলঙ্কায় বোমা বিস্ফোরণে নিহত হন। তার বাবা মশিউল হক গুরুতর আহতাবস্থায় কলম্বোর একিটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তার শারীরিক অবস্থা ভালো না থাকায় এ মুহূর্তে দেশে আনা যাচ্ছে না।

তিনি বলেন, মশিউল হক চৌধুরী সপরিবারে কলম্বোতে ঘুরতে গিয়েছিলেন। সেখানে একটি রেস্টুরেন্টে খেতে গিয়ে তারা বোমা হামলার শিকার হন। বোমা হামলার পর জায়ানের খবর পাওয়া যায়নি। পরে একটি হাসপাতালে তার মরদেহ পাওয়া যায়।

শ্রীলঙ্কার বোমা হামলায় নিহত জায়ান চৌধুরীর দাদাবাড়ি সিলেটের সুনামগঞ্জের ভাটিপাড়ায়। জায়ানের বাবা মশিউল হক চৌধুরী প্রিন্স এম এইচ চৌধুরী পারুলের ছেলে। প্রিন্স আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিমের মেয়ে শেখ সোনিয়ার স্বামী।

জায়ান প্রিন্স-সোনিয়া দম্পতির বড় ছেলে। মা-বাবা ও ছোট ভাইয়ের সঙ্গে ছুটি কাটাতে জায়ানরা শ্রীলংকায় গিয়েছিল।

প্রসঙ্গত, শ্রীলঙ্কায় রবিবারের ভয়াবহ সিরিজ বিস্ফোরণে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২৯০ জনে দাঁড়িয়েছে। আহত হয়েছেন আরও ৫০০ জন। হবে হামলার দায় এখনো কেউ স্বীকার করেনি।

মন্তব্য লিখুন :