চিকিৎসককে ধর্ষণের হুমকি, গ্রেপ্তারের ৪০ মিনিটেই জামিন ছাত্রলীগ নেতার

সিলেট উইমেন্স মেডিক্যাল কলেজের ইন্টার্ন চিকিৎসক ডা. নাজিফা আনজুম নিশাতকে হত্যা ও ধর্ষণের হুমকি দেওয়া দক্ষিণ সুরমা উপজেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি সারোয়ার হোসেন চৌধুরী ঘগ্রেপ্তারের ৪০ মিনিটের মাথাতেই জামিন পেয়েছেন।

মঙ্গলবার (১৪ মে) দুপুরে সিলেট অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মোস্তাইন বিল্লাহর আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করলে আদালত সারোয়ারের জামিন মঞ্জুর করেন।

এর আগে বেলা আড়াইটার দিকে আদালতের গেট থেকে তাকে আটক করা হয়। তবে আদালত থেকে জামিন পাওয়ার কারণে আটকের ৪০ মিনিটের মাথায় তিনি ছাড়া পান।

জানা যায়, গত ৯ মে বিকালে ছাত্রলীগের ১০-১৫ নেতাকর্মী পেটের পীড়ায় ভোগা একজনকে সিলেট উইমেন্স মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। এ সময় রোগীর সঙ্গে একজন থেকে বাকিদের বাইরে যেতে বলেন কর্তব্যরত চিকিৎসক। এ নিয়ে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে চিকিৎসকের ওপর চড়াও হয় ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। এ সময় দক্ষিণ সুরমা উপজেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি সারোয়ার হোসেন চিকিৎসক নাজিফা আনজুম নিশাতকে ছুরি দেখিয়ে হত্যা ও ধর্ষণের হুমকি দেন বলে অভিযোগ করেন ওই চিকিৎসক। নিশাত নিজের ব্যক্তিগত ফেসবুক আইডিতে বিষয়টি উল্লেখ করে পোস্ট দিলে এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক আলোচনার সৃষ্টি হয়।

সোমবার দক্ষিণ সুরমা উপজেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি সারোয়ার হোসেন চৌধুরীকে প্রধান আসামি করে অজ্ঞাত আরও ৮-১০ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করা হয়।

সিলেট কোতোয়ালি থানার ওসি সেলিম মিঞা বলেন, আদালতের কাগজপত্র যাচাই-বাছাই শেষে তাকে সোয়া ৩টার দিকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

আদালত সূত্র জানায়, মামলাটি জামিনযোগ্য ধারায় হওয়াতে আদালত সারোয়ার হোসেনকে জামিন প্রদান করেন।

মন্তব্য লিখুন :