ড. এম এ ওয়াজেদ বিশ্বের বুকে বাংলাদেশকে উজ্জ্বল করেছেন: স্পিকার

ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়া বিশ্বের বুকে বাংলাদেশকে উজ্জ্বল করেছেন বলে উল্লেখ করে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এমপি বলেছেন, প্রজন্ম থেকে প্রজন্ম ড. ওয়াজেদ মিয়ার নাম ইতিহাসের পাতায় লেখা থাকবে। বিজ্ঞান চর্চায় তাঁর অবদান ভবিষ্যত প্রজন্মকে অনুপ্রেরণা যোগাবে। বর্তমান ও ভবিষ্যত প্রজন্মকে ওয়াজেদ মিয়ার জীবন থেকে শিক্ষা নেওয়ার আহবান জানান তিনি। 

গতকাল সোমবার বিকেলে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির চিত্রশালা মিলনায়তনে আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন পরমাণু বিজ্ঞানী ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়ার ১০ম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন। সাধনা সংসদ আয়োজিত সভায় সভাপতিত্ব করেন শিল্প মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও সাধনা সংসদের উপদেষ্টা আমির হোসেন আমু এমপি।

আলোচনায় অংশ নেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক এমপি, সমাজকল্যাণ মন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ এমপি, সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি রাশেদ খান মেনন এমপি, সাধনা সংসদের প্রতিষ্ঠাতা মহাসচিব অ্যাডভোকেট দেলওয়ার হোসেন ভূইয়া প্রমুখ।

সভায় স্পিকার বলেন, ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়া তাঁর মেধা, মনন ও সৃজনশীলতা দিয়ে দেশের মানুষের জন্য যে কাজ করে গেছেন তা চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে। সৎ কর্ম ও বিজ্ঞানমনস্ক চিন্তার মধ্য দিয়ে তিনি বেঁচে থাকবেন অনন্তকাল।

তিনি আরো বলেন, যুগে যুগে পৃথিবীতে এমন কিছু মানুষের আবির্ভাব ঘটে, যারা নিজেদের চেয়ে দেশ ও জাতির কল্যাণের কথা অধিক গুরুত্বের সঙ্গে চিন্তা করেন, মানবতার কল্যাণে নিবেদিত হন। তেমনই একজন মহান ব্যক্তি বিশিষ্ট পরমাণু বিজ্ঞানী ড. ওয়াজেদ মিয়া।

ড. শিরীন শারমিন বলেন, যে জাতি গুণিজনদের সম্মান জানায়, সেই জাতি বিশ্বের বুকে মাথা উচু করে দাঁড়ায়। তাই ড. ওয়াজেদ মিয়ার মতো মেধাবী মানুষকে স্মরণ করতে শুধু সভা সেমিনার নয়, সারাদেশে বিজ্ঞান মেলা এবং গবেষণা বাড়াতে হবে।

আলোচনা সভা শেষে স্পিকার ইফতার মাহফিলে অংশ নেন। ইফতারে ড. ওয়াজেদ মিয়ার আত্মার শান্তি এবং দেশ, জাতি ও মুসলিম উম্মাহর শান্তি কামনা করে মোনাজাত করা হয়।


মন্তব্য লিখুন :