চট্টগ্রামে ৪৪ শিক্ষার্থীর প্রাণহানির দুঃসহ দিন আজ

চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে সড়ক দুর্ঘটনার ৪৪ শিক্ষার্থীর প্রাণহানির অষ্টম বার্ষিকী আজ। ২০১১ সালের ১১ জুলাই বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিব ফুটবল টুর্নামেন্ট খেলা দেখে বাড়ি ফেরার সময় চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ের বড়তাকিয়া-আবুতোরাব সড়কে ভয়াবহ দুর্ঘটনায় স্কুলছাত্রসহ ৪৫ জনের মৃত্যু হয়।

দেশ-বিদেশে আলোড়ন সৃষ্টিকারী এই সড়ক দুর্ঘটনায় শোকাহত পরিবারগুলোকে সান্ত্বনা দিতে ছুটে যান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিএনপিপ্রধান খালেদা জিয়াসহ দেশের রাজনীতিক ও বিভিন্ন দেশের কূটনীতিকরা। সেই মর্মান্তিক ঘটনার দুঃসহ স্মৃতি আজও তাড়িয়ে ফেরে মিরসরাইবাসীকে।  

যাত্রী অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সামসুদ্দীন চৌধুরী এক বিবৃতিতে বলেন, ‘১১ জুলাইয়ের মিরসরাই ট্র্যাজেডি শুধু দেশের ইতিহাসেই নয়, বিশ্ব কাঁপানো একটি দিন। দিনটিকে আমরা আমাদের মাঝে লালন করে ভবিষ্যত্ প্রজন্মের পথচলায় সতর্কতা অবলম্বন করব।’ তিনি সড়কে শৃঙ্খলা ও যাত্রীসাধারণকে দুর্ঘটনামুক্ত নিরাপদ যাত্রীসেবা প্রদানের লক্ষ্যে এবং ওই ভয়াবহ দুর্ঘটনায় নিহত স্কুলছাত্রদের স্মৃতি স্মরণীয় করে রাখতে ১১ জুলাইকে ‘নিরাপদ যাত্রীসেবা দিবস’ হিসেবে পালন করার আহ্বান জানান। 

বিবৃতিতে ওই দুর্ঘটনায় নিহত আবু তোরাব বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের ৩৪ জন, আবু তোরাব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তিনজন, প্রফেসর কামাল উদ্দিন চৌধুরী কলেজের দুজন, আবু তোরাব ফাজিল মাদরাসার দুজন এবং আবু তোরাব এসএম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থীর স্মৃতি স্মরণ করে তাদের স্বজনদের প্রতি সমবেদনা জানানো হয়।

মন্তব্য লিখুন :