ডেঙ্গু প্রতিরোধে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে দুই মেয়রকে আল্টিমেটাম

রাজধানী ঢাকা শহরের ডেঙ্গু প্রতিরোধে জরুরি ব্যবস্থা নিতে দুই মেয়রের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন গৌরব '৭১। সেই সাথে ব্যবস্থা নিতে না পারলে মেয়রদের কার্যালয় ঘেরাও করে পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলনের ঘোষণা দিয়েছে তারা।

শুক্রবার (১২ জুলাই) বেলা ১১টায় রাজধানীর শাহবাগ চত্বরে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে এ দাবি জানায় সংগঠনটি।

বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ,  জিটিভি ও সারাবাংলা ডট নেটের প্রধান সম্পাদক সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা,  গণজাগরণ মঞ্চের সংগঠক বাপ্পাদিত্য বসু, ছাত্রনেতা কামরুজ্জামান সুইট, ইঞ্জিনিয়ার শাকিল আহমেদ, আইনজীবী রাশিদা চৌধুরী নিলু, মানবাধিকার কর্মী পদ্মাবতী দেবী, ডা. শাহাদাত হোসেন নিপু প্রমুখ। এছাড়া সমাবেশে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত ভুক্তভোগী পরিবারের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন অম্বিক মণ্ডল এবং গুলশাহানা ঊর্মি।

গোলাম কুদ্দুছ তার বক্তব্যে বলেন, গৌরব’৭১ আজকে এখানে কোনো রাজনৈতিক কারণে দাঁড়ায়নি। বরং দাঁড়িয়েছে মানুষের জীবন রক্ষার্থে যৌক্তিক কথা বলতে।

ঢাকার দুই সিটির মেয়রের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আপনারা পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার কথা বলেন। আমি তো আমার ঘর পরিষ্কার রাখি। কিন্তু আপনারা নর্দমা পরিষ্কার করেছেন কি? নর্দমা থেকে যে ডেঙ্গু ছড়াচ্ছে ,সেদিকে খেয়াল রাখছেন কি? ঢাকাতে ডেঙ্গু ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। অথচ সিটির দুই্ মেয়র এখনো কোনো ব্রিফিং করে এ ব্যাপারে কিছুই জানায়নি। ডেঙ্গু প্রতিরোধে তারা কি ব্যবস্থা গ্রহণ করলেন, কতজন ডেঙ্গুতে মারা গেছেন, কতজন অসুস্থ আছেন তার কোন বিবৃতি তারা দেননি।

দুই মেয়রকে হুঁশিয়ারি দিয়ে তিনি বলেন, আপনাদের দায়িত্বহীনতার কারণে মানুষের জীবনহানি হলে জনগণ তা মেনে নেবে না। আপনারা দুই মেয়র বসেন। আর ডেঙ্গু প্রতিরোধে করণীয় ঠিক করেন। তা না হলে জনগণ আপনাদের ছেড়ে দেবে না।

বিশিষ্ট সাংবাদিক সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা বলেন, ডেঙ্গু যে কত ভয়াবহ যারা স্বজন হারিয়েছে কিংবা যাদের স্বজন আক্রান্ত হয়ে কাতরাচ্ছে কেবল তারাই বুঝতে পারে।

দুই মেয়রের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আপনারা যদি মশা মারতে না পারেন। তাহলে আপনাদের দরকার নেই। আপনারা ঢাকা ছেড়ে চলে যান। আপনারা কাঁচের ঘরে বাস করছেন। কিন্তু এটা ভাঙতে সময় লাগবে না।

প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনি দুই মেয়রকে কাঠগড়ায় দাঁড় করান। কেন না, তাদের কারণে আপনার অনেক অর্জন ম্লান হয়ে যাচ্ছে।

সমাবেশে ডেঙ্গু জ্বরে স্বজন হারানো গুলশাহানা ঊর্মি বলেন, মেয়ররা বলে থাকেন জ্বর হলে দ্রুত হাসপাতালে নিতে। কিন্তু ডেঙ্গু জ্বর যেন না হয় তার জন্য আপনারা কোনো পদক্ষেপ নেন না। আপনারা সচেতনতার কথা বলেন, কিন্তু আমি তো সচেতন ছিলাম তাহলে আমি কেন স্বজন হারালাম?  এ কথা বলে তিনি কান্নায় ভেঙে পড়েন।

মেয়রদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আপনাদের ঘরেও সন্তান আছে, তারা যদি আক্রান্ত হয়ে মারা যায়, তখন কি আপনাদের স্ত্রীরা চুপ করে থাকবে? আপনাদের নিজেদের তখন কেমন লাগবে?

অম্বিক মন্ডলের স্বজন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে কাতরাচ্ছেন। তিনি সমাবেশে বলেন, ডেঙ্গু যে কতো ভয়াবহ, তা শুধু আক্রান্তের স্বজনই বুঝতে পারে। আমি অবিলম্বে ডেঙ্গু প্রতিরোধের ব্যবস্থা গ্রহণের জোর দাবি জানাই।

সংগঠক বাপ্পাদিত্য বসু বলেন, মেয়র সাহেব আপনারা বলছেন মশা ওষুধের চেয়ে শক্তিশালী। তাহলে আপনারা পদত্যাগ করে মশাকে দায়িত্ব দিয়ে দিন। ডেঙ্গুকে জাতীয় দুর্যোগ মনে করে সিটি কর্পোরেশন এবং স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের যৌথ উদ্যোগে ডেঙ্গু প্রতিরোধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা উচিত বলে তিনি মনে করেন।

আইনজীবী রাশিদা চৌধুরী নিলু বলেন, ডেঙ্গু এখন মহামারী আকার ধারণ করেছে। আমরা আইনজীবীরা গৌরব’৭১ সংগঠনের এ যৌক্তিক আন্দোলনে পাশে আছি।

অনুষ্ঠানের সঞ্চালক এফ এম শাহিন বলেন, দুই মেয়র যদি ডেঙ্গু প্রতিরোধে কোনো ব্যবস্থা না নেয়, তাহলে গৌরব ৭১ সংগঠন মেয়রদের কার্যালয় ঘেরাও করবে। প্রয়োজনে মেয়রদের কোটি টাকার গাড়িও আটকাবে।

গৌরব ৭১ এর সভাপতি এসএম মনিরুল ইসলাম মনির সভাপতিত্বে এবং সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক এফ এম শাহীনের সঞ্চালনায় এতে আরো উপস্থিত ছিলেন বিবার্তা সম্পাদক বাণী ইয়াসমিন হাসি, ঢাবি রোকেয়া হল ছাত্র সংসদের এজিএস ফাল্গুনি দাস তন্বীসহ বিশিষ্ট রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিবর্গ। 

মন্তব্য লিখুন :