‘পূজার নিরাপত্তায় থাকবে সাড়ে ৩ লাখ নিরাপত্তাকর্মী’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান জানিয়েছেন, আসছে দুর্গা পূজার নিরাপত্তায় সারাদেশে নিয়োজিত থাকবে আইনশৃ্ঙ্খলা বাহিনীর সাড়ে তিন লাখ সদস্য। পূজার নিরাপত্তায় মহিলা স্বেচ্ছাসেবকও থাকবেন।

তিনি বলেন, পূজা মণ্ডপের নিরাপত্তায় প্রয়োজনীয় সংখ্যক পুলিশ ও গোয়েন্দারা থাকবেন। আমরা বলেছি পূজা মণ্ডপে যেখানে বিদ্যুৎ থাকবে সেখানে যাতে সিসিটিভি থাকে।

বুধবার (১৮ সেপ্টেম্বর) সচিবালয়ে দুর্গা পূজায় নিরাপত্তা বিষয়ে আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত কমিটির সভা শেষে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সারাদেশে গত বছরের তুলনায় পূজা মণ্ডপ বেড়েছে। এবার ৩১ হাজার ১০০টি পূজা মণ্ডপ থাকবে, তার চেয়েও বাড়তে পারে। ধর্ম যার যার উৎসব সবার। যে যার ধর্ম উৎসবের সঙ্গে পালন করবে। গত বছরের চেয়ে এক হাজার মণ্ডপ বাড়ছে। আর মহানগরীতে ২৩৭টি পূজা মণ্ডপ হচ্ছে।

তিনি বলেন, পূজা মণ্ডপে অগ্নিকাণ্ডসহ অন্যান্য দুর্ঘটনা ঘটলে দ্রুত কার্যকর ব্যবস্থায় ফায়ার সার্ভিস সহ রেসকিউ শর্টগান ফায়ার সার্ভিস এবং ইয়ারাফোর্স নিয়োজিত থাকবে।

পূজা চলাকালীন ঢাকাসহ সারাদেশে বিশেষ করে পূজামণ্ডপ এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক রাখার জন্য ব্যবস্থা থাকবে। স্থানীয় বখাটেরা পূজামণ্ডপে আগত নারী ও শিশুদের উত্যক্ত করতে না পারে সেজন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীসহ স্বেচ্ছাসেবক দল প্রস্তুত থাকবে।

পুলিশ সদর দফতর ও অন্যান্য জেলা পর্যায়ে একটি করে নিয়ন্ত্রণ কক্ষ থাকবে, এই কক্ষ থেকে আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত তদারকি করা হবে। এছাড়াও পূজায় নিরাপত্তার জন্য ৯৯৯ সেবা চালু থাকবে। যেকোনো ইমার্জেন্সিতে সেখানে কল দিলে সহযোগিতা করা হবে।

মন্ত্রী বলেন, দুর্গা পূজাকে কেন্দ্র করে ঢাকাসহ অন্যান্য জায়গায় যাতে যানজট সৃষ্টি না হয় সেজন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য লিখুন :