ছাত্রলীগের ইতিহাস, বাংলাদেশের ইতিহাস

বাংলাদেশ ছাত্রলীগ একটি গর্বের প্রতিষ্ঠান। ছাত্রলীগ প্রতিষ্ঠার পর হতে আজ অবধি গর্ব করার মতো ইতিহাস তার রয়েছে । এই দেশের প্রতিটা অর্জনের সাথে ছাত্রলীগ নামটি ওতেপ্রাতভাবে জড়িয়ে আছে। ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে প্রতিটা গণতান্ত্রিক আন্দোলনে ছাত্রলীগ ছিল অগ্রগামী ভূমিকায়। সুদীর্ঘ সত্তর বছরের আন্দোলন সংগ্রামের গৌরবোজ্জল ইতিহাস ধারক এবং বাহক বাংলাদেশ ছাত্রলীগ।

বাঙালী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বলেছিলেন, ‘ছাত্রলীগের ইতিহাস বাংলাদেশের ইতিহাস। বাংলাদেশ এবং বাংলাদেশ ছাত্রলীগকে আলাদা করে দেখার সুযোগ নেই। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে আজ পর্যন্ত বারবার ছাত্রলীগকে বিতর্কিত করার অপচেষ্টা করা হয়েছে। আজও সেই ধারাবাহিকতা বিদ্যমান। কিন্তু ছাত্রলীগের শিকড় এত দূর্বল নয় যে, চাইলেই সেটা উপড়ে ফেলা যায়।

ছাত্রলীগ দক্ষিণ এশিয়ার অন্যতম বৃহৎ ছাত্র সংগঠন। এত বড় একটি প্রতিষ্ঠানে সবাই ভালো হবে, এমনটা আশা করা যায় না। কিছু সুবিধাভোগী থাকে, যারা জাতির পিতার আদর্শকে ধারণ করে না। তারাই বারবার ছাত্রলীগকে বিতর্কিত করার সুযোগ তৈরি করে দিচ্ছে।

তাছাড়া, আজ প্রায় দশ বছর বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায়। দল ক্ষমতায় থাকল সংগঠনের দিকে সেভাবে খেয়াল করা যায় না। যার ফলস্বরূপ, আজ ছাত্রলীগে অনুপ্রবেশকারীর সংখ্যা অনেক। যাদের বিতর্কিত কর্মকাণ্ড ছাত্রলীগের ঐতিহ্যকে হুমকির মুখে ফেলছে ।

এই অনুপ্রবেশকারীদের কর্মকাণ্ডের দায় তৎকালীন নেতৃত্ব কোনোভাবেই এড়িয়ে যেতে পারে না। এই অনুপ্রবেশকারীদের আর কিছু সুবিধাভোগীদের কর্মকাণ্ড বাদ দিলে ছাত্রলীগকে নিয়ে গর্ব করাই যায়। মুষ্টিমেয় কিছু সুবিধাভোগীদের জন্য ছাত্রলীগ তাদের অর্জিত গৌরবোজ্জল ইতিহাসকে জলাঞ্জলি দিতে পারে না।

তাই বর্তমান নেতৃত্বকে শক্ত হাতে এদেরকে দমন করতে হবে। দলের ভেতর ঘাপটি মেরে থাকা অনুপ্রবেশকারীদের খুঁজে বের করে শুদ্ধি অভিযান পরিচালনা করতে হবে, যাতে করে কেউ আর ছাত্রলীগের দিকে আঙুল তোলার সুযোগ না পায়।

পাশাপাশি আই হেট পলিটিক্স প্রজন্মকে একটি কথাই বলতে চাই, ছাত্রলীগ সম্পর্কে মন্তব্য করার আগে আপনার প্রিয় মাতৃভূমির ইতিহাস জানার চেষ্টা করুন। তাহলেই ছাত্রলীগের ঐতিহ্যকে জানতে পারবেন। মনে রাখবেন, ষড়যন্ত্রকারীরা বারবার ইতিহাসের আস্তাকুড়ে নিক্ষিপ্ত হয়েছে। কিন্তু বাংলার ইতিহাসে, বাঙালীর ইতিহাসে, ছাত্রলীগ এক গৌরবোজ্জল অধ্যায় হিসেবে আজও স্বমহিমায় ভাস্বর হয়ে আছে এবং থাকবে।

মো. সোহেল বিশ্বাস 
সিনিয়র সহ-সভাপতি 
বাংলাদেশ ছাত্রলীগ,খুলনা মহানগর, শাখা।

মন্তব্য লিখুন :