মানুষ করোনার চেয়ে শক্তিশালী

দেশে করোনার প্রাদুর্ভাবের শুরুতে দেশের মানুষের মনোবল ধরে রাখার জন্য আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ভাই বলেছিলেন ‘আমরা করোনার চেয়েও শক্তিশালী’ এই কথাটার গভীরে না গিয়ে সমালোচকরা ট্রল এর বন্যায় ভাসালেন। দু:খজনক হলেও আমাদের অনেক নেতাকর্মীকেও দেখেছি এই ট্রলে গা ভাসাতে। এখনো কথায় কথায় ট্রল করে যাচ্ছেন।

আসলে সবকিছু নিয়ে ট্রল করা কিছু মানুষের বদভ্যাসে পরিণত হয়েছে। তিনি প্রকৃত অর্থে আমরা বলতে বুঝাতে চেয়েছেন মানুষ। আমরা সাবধানতা অবলম্বন করলে করোনাকে পরাজিত করতে পারবো এটাই ছিল তার মূল কথা, বলার ধরণে ভিন্নতা থাকতেই পারে। তিনি যেহেতু আওয়ামী লীগ এর সাধারণ সম্পাদক, একদল অত্যন্ত সুপরিকল্পিতভাবে বলা শুরু করলো তিনি নাকি বলেছেন আওয়ামী লীগ করোনার চেয়েও শক্তিশালী। অর্বাচিনতা কাকে বলে! তিনি কোথাও আওয়ামী লীগ শব্দটি ব্যবহার করেননি।

কিন্তু আমরা কেউ কথাটার গভীরে যাওয়ার চেষ্টা করলাম না। কেউ একটুও চিন্তা করে দেখলাম না যারা এই দলের পান থেকে চুন খসলে সমালোচনার ঝাঁপি খুলে বসে তাদের হাতে আমরাই একটা অস্ত্র তুলে দিলাম।

এবার আসি ওনার কথার মর্মার্থটা কি বা কেন আমরা শক্তিশালী। করোনা একটি ভাইরাস, যা সারা বিশ্বে লক্ষ লক্ষ লোকের প্রাণহানি ঘটিয়ে চলেছে। মহান আল্লাহ মানুষকে ‌‌'আশরাফুল মাখলুকাত' অর্থাৎ সৃষ্টির সেরা জীব করে দুনিয়াতে পাঠিয়েছেন, এই মানুষই তো সৃষ্টির শুরু থেকে অদ্যাবধি সকল রোগ প্রতিরোধ করেছে। আল্লাহ রোগ যেমন দিয়েছেন তা প্রতিহত করার পন্থাও সর্বশ্রেষ্ঠ বিজ্ঞান কোরআন ও নবী রাসূলদের মাধ্যমে বাতলেও দিয়েছেন। যুগ যুগ ধরে কোরআনের এই নির্দেশিত পথে মানুষ সকল রোগের প্রতিষেধক আবিষ্কার করেছে, অতি সম্প্রতি প্রাণঘাতী সার্স, মার্স, ইবোলাসহ বিভিন্ন প্রাণসংহারী রোগের প্রতিষেধক মানুষই তৈরি করেছে। কোন এলিয়েন বা ফেরেশতা এসে তৈরি করে দেয়নি। এখানেইতো মানুষের শক্তিশালী হবার প্রমাণ...।

বর্তমান এই বৈশ্বিক মহামারির ক্ষেত্রেও আমেরিকা, যুক্তরাজ্য, জার্মানি, চায়না, জাপানসহ পৃথিবীর অনেক দেশ এই মহামারির প্রতিষেধক তৈরির প্রায় দ্বারপ্রান্তে চলে এসেছে। অচিরেই মানুষ করোনাকে পরাজিত করবেই। যারা সফলতার দিকে এগিয়ে যাচ্ছেন তারাও কিন্তু মানুষ, এলিয়েন বা ফেরেশতা নন। এই যুদ্ধে মানুষের আল্লাহ প্রদত্ত শক্তিই জয়ী হবে, সেটা সময়ের ব্যাপার মাত্র।

যুগ যুগ ধরে নবী রাসূলগণ পথ বাতলে দিয়েছেন এধরনের মহামারি আসলে কিভাবে একস্থান থেকে অন্যস্থান- একজন থেকে অন্যজন দূরত্ব রক্ষা করে মহামারি থেকে রক্ষা পেতে হয়।

আমরা সরকারকে আহ্বান জানাবো- কোরআন হাদিসের কোন নির্দেশনাই যদি না মানি তাহলে আক্রান্ত আর মৃত্যুর মিছিল বাড়তেই থাকবে। একবার চিন্তা করে দেখেছেন- ছোট্ট একটা দেশে ১৭ কোটি মানুষ, যারা দিনমজুর, দিনে আনে দিনে খায়। ছোট্ট একটি ঘরে গাদাগাদি করে কোন মতে রাত কাটায়- তাদের কাছে লকডাউন হোক আর কারফিউ হোক এসবের কোন কানাকড়িও মূল্য নাই, তাদের কিভাবে ঘরে আটকে রাখবেন? তবুও সরকার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

সমালোচকরা সমালোচনা করবেই, তবে আমরা দলের নেতাকর্মীরা নিজদলের সমালোচনা করতে যেন একটু চিন্তা করি। কারণ আমাদের ছোট ছোট ভুল দল এবং প্রিয় নেত্রীর দিবারাত্রি পরিশ্রমের ফল প্রশ্নবিদ্ধ হয়ে যেতে পারে। আমিও কাদের ভাইয়ের সাথে কণ্ঠ মিলিয়ে বলি আমরা (মানুষ) করোনার চেয়ে শক্তিশালী।

লেখক: যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, চট্রগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ (সাবেক সহ সভাপতি, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ)