যুক্তরাষ্ট্র বাণিজ্যে কালো তালিকাভুক্ত হয়েছে হুয়াওয়ে সহ ৭০টি প্রতিষ্ঠান

চীনের প্রযুক্তিবিষয়ক কোম্পানি হুয়াওয়ে ও এর সঙ্গে সংশি্লষ্ট ৭০টি প্রতিষ্ঠানকে বাণিজ্যে কালো তালিকাভুক্ত করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

বুধবার তাদেরকে এ তালিকায় তুলেছে যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্যবিষয়ক মন্ত্রণালয়। যুক্তরাষ্ট্রের কম্পিউটার নেটওয়ার্কগুলোকে 'বিদেশি প্রতিপক্ষগুলোর' হাত থেকে সুরক্ষা দেয়ার জন্য জাতীয় জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

একে 'অযেৌক্তিক' আখ্যা দিয়ে হুয়াওয়ে বলছে, 'এ সদ্ধিানে্তর মধ্য দিয়ে যুক্তরাষ্ট্র নিরাপদ কিংবা শক্তিশালী হয়ে যাবে না। এর ফল ভালো হবে না।'

রয়টার্স জানায়, হুয়াওয়ে টেকনোলজি কোম্পানি লিমিটেড ও তাদের সঙ্গে সংশি্লষ্ট ৭০টি প্রতিষ্ঠানকে কালো তালিকায় ফেলার অর্থ হল, এসব কোম্পানি সরকারের অনুমোদন ব্যতিরেকে যুক্তরাষ্ট্রের কোনো কোম্পানির কাছ থেকে যন্ত্রাংশ অথবা উপাদান কিনতে পারবে না।

এ বিষয়টি কয়েকদিনের মধ্যে কার্যকর হবে। ফলে যুক্তরাষ্ট্রের কোনো প্রযুক্তি কিনতে হলে হুয়াওয়ের থাকতে হবে মার্কিন সরকারের লাইসেন্স।সাইবার নিরাপত্তায় জাতীয় জরুরি অবস্থা ঘোষণা সংক্রান্ত বুধবার একটি নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষর করেন ট্রাম্প। ওই নির্বাহী আদেশে কোনো কোম্পানির নাম বলা হয়নি।

কিন্তু চীনের হুয়াওয়ে কোম্পানিকে লক্ষ্য করে এটি করা হয়েছে বলে ধারণা। এ বিষয়ে হোয়াইট হাউসের এক বিবৃতি অনুযায়ী, ট্রাম্পের আদেশের লক্ষ্য হল, বিদেশি প্রতিপক্ষ যারা সক্রিয় ও ক্রমবর্ধমানভাবে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অবকাঠামো ও সেবার ক্ষেত্রে দুর্বলতা তৈরি করছে ও এর সুযোগ নিচ্ছে তাদের থেকে আমেরিকাকে সুরক্ষা দেয়া।'

বৃহস্পতিবার দেয়া এক বিবৃতিতে হুয়াওয়ে বলেছে, তাদের কাজে কোনো হুমকি নেই এবং তারা চীন সরকার থেকে স্বতন্ত্র ও স্বাধীন কোম্পানি।যুক্তরাষ্ট্রে তাদের ব্যবসা করার ক্ষেত্রে বিধিনিষেধ আরোপ করাতে যুক্তরাষ্ট্র আরও সুরক্ষিত বা শক্তিশালী হয়ে উঠবে না বলেও মন্তব্য করেছে কোম্পানিটি।

হুয়াওয়ের পণ্য চীন গোয়েন্দাগিরিতে ব্যবহার করতে পারে বলে সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বে বেশ কয়েকটি দেশ উদ্বেগ প্রকাশ করতে শুরু করে।

মন্তব্য লিখুন :