শিষ্যকে যৌন হেনস্তা, গোপন ক্যামেরায় ধরা কোচ!

নিজের কোচের বিরুদ্ধেই যৌন হেনস্থার অভিযোগ তুলেছেন কলকাতার এক সাঁতারু। এ নিয়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে পশ্চিমবঙ্গের ক্রীড়া মহলে।

গত ছ’মাস ধরে ওই কোচ জাতীয় পর্যায়ে অংশ নেওয়া ওই সাঁতারুর সঙ্গে অশালীন আচরণ করতেন বলে অভিযোগ। শেষে উপায় না দেখে ওই কিশোরী নিজের লুকিয়ে রাখা মোবাইলে কোচের যৌন হেনস্থার ভিডিও তুলে তা প্রকাশ্যে আনেন।

ফাঁস হওয়া সেই ভিডিওতে দেখা গেছে, আগে থেকেই ঘরের একটা জায়গায় ভিডিও রেকর্ডার অন করে একটি মোবাইল রেখে দিচ্ছে ওই কিশোরী। তার পর সে এগিয়ে যায় ঘরের দরজার দিকে। খোলা দরজা দিয়ে এর পর ওই কোচকে ঢুকতে দেখা যায়।

কিশোরীর ডান পায়ে ক্রেপ ব্যান্ডেজ বাঁধা। কোচ এসে প্রথমে সেই চোটের জায়গাটা দেখেন। তার পর নানা ভাবে কিশোরীর গায়ে হাত দেন। কিছুক্ষণ পর তিনি ঘর থেকে বেরিয়েও যান। এর পর মোবাইলের ভিডিও রেকর্ডার অফ করতে দেখা যায় কিশোরীকে।

অন্য একটি ভিডিও বার্তায় ওই কিশোরীকে বলতে শোনা যায়, গোয়ায় আসার পর থেকেই স্যার আমার সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করছিলেন। আমি প্রতিবাদ জানালে বলতেন, কাউকে বলবে না। তোমার ভবিষ্যৎ রয়েছে। আমি ভয়ে কাউকে কিছু বলতাম না। কিন্তু, এই নোংরামি আমার পক্ষে আর সহ্য করা সম্ভব হচ্ছিল না। সে কারণেই সব কিছু ফাঁস করার সিদ্ধান্ত নিই। এখন আমি সাহায্য চাইছি।

মঙ্গলবার ওই কিশোরীর বাবার ভারতের একটি সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, তাঁর মেয়ে বর্তমানে চূড়ান্ত হতাশ এবং মানসিক ভাবে বিধ্বস্ত। কারও সঙ্গেই মেয়ে কথাও বলছে না।

মন্তব্য লিখুন :