তিনিই বিশ্বে প্রথম

ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত সংস্করণ টি-২০ তে উইকেট পাওয়াই সবার জন্য চরম আরাধ্যের। আর সেটা যদি হয় প্রথম ম্যাচে তাহলে তাকে ভাগ্যবানই বলা যায়। তবে ভাগ্যবান বিশেষণটা বোধয় এখনো জাতীয় দলে সুযোগ না পাওয়া বাংলাদেশী আলিস ইসলামের ক্ষেত্রে প্রযোয্য নয়। কারণ এই বোলার বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগে (বিপিএল) যেটা করেছেন তাতে তাকে মহাভাগ্যবানই বলতে হবে। কারণ এই বোলার অভিষেকেই আইসিসি স্বীকৃত কোনো টি-২০ টুর্নামেন্টে হ্যাটট্রিক করার কীর্তি গড়েছেন।

অবশ্য তাকে ভাগ্যবান বলাটা উচিত হবে না। কারণ ভালো বোলিংয়ের সুবাদেই তিনি এই কীর্তি গড়তে পেরেছেন সেটা নিঃসন্দেহে সবাইকে মানতে হবে।

আলিস শুধু বিশ্বের প্রথম বোলার হিসেবে অভিষেক টি-২০ তে হ্যাটট্রিকই করেননি, বিপিএলের ইতিহাসেও প্রথম হ্যাটট্রিকম্যান তিনি। তার হ্যাটট্রিকের আরও একটি বিশেষ মর্যাদা রয়েছে। এই বোলার ১৮তম ওভারে এই অসাধ্যটি সাধন করেন। যে কারণে তার দল ঢাকা ডায়নামাইটসও পায় ২ রানের জয়।

যেভাবে হ্যাটট্রিক

১৮তম ওভারের খেলা শুরুর আগে রংপুরের জিততে প্রয়োজন ছিল ১৮ বলে ২৬ রান। হাতে আছে ৬ উইকেট ও মাঠে ৪৮ রান করা মোহাম্মদ মিথুন। এমন গুরুত্বপূর্ণ সময়ে বেশ বড় বাজিই ধরে ফেললেন সাকিব আল হাসান। বোলিংয়ে নিয়ে আসলেন তরুণ স্পিনার আলিস ইসলামকে।

প্রথম বলে সুইকার কাভারে মেরে ১ রান নেন বেনি হাওয়েল। পরের বলে মিথুন এসে ডিপ মিড-উইকেট দিয়ে বল পাঠিয়ে নেন আরও একটি রান। তৃতীয় বলে আলিসকে লং অনে উড়িয়ে মারেন হাওয়েল। বল উড়ে চলে যায় শুভাগত হোমের কাছে। তবে ক্যাচটি তিনি তালুবন্দি করতে পারেননি।

তার করা চতুর্থ বলে ছয় মারতে গিয়ে লাইন মিস করে বোল্ড হন মিথুন। পরের বলেই আলিস বোল্ড করেন মাশরাফিকে। শেষ বলে ফরহাদ রেজাকে সাকিবের ক্যাচ বানিয়ে তুলে নেন হ্যাটট্রিক।

আর এতেই ঘুরে যায় ম্যাচ। শেষ অবধি দুই রানের জয় পায় ঢাকা।

মন্তব্য লিখুন :