সাংবাদিকের কথায় ছক্কা হাঁকালেন তামিম (ভিডিও)

পঞ্চ পাণ্ডবের একজন তামিম ইকবাল। বিপক্ষ শক্তির বোলিং তোপ সামলে প্রথম গর্জনটা তিনিই দেন। কখনও কখনও মাঠে তামিমের হুংকারই জানান দিয়ে দেয় আজ বাংলাদেশ জিতবে। তার ব্যাট হাসলে পুরো বাংলাদেশ হাসে।

২২ গজে একটু থিতু হতে পারলেই অপ্রতিরোধ্য হয়ে ওঠেন এই ব্যাটসম্যান। বিশ্বমানের বাঘা বাঘা বোলারদের তুলোধুনো করে স্কোরবোর্ডের চাকা দ্রুত এগিয়ে নেন।

তবে মাঠের বুম বুম তামিমকে ক্রিকেটপ্রেমীরা বেশ ভালো করে জানলেও মাঠের বাইরে কথায়ও যে তিনি বোমা ফাটাতে পারেন তা এবার জানা গেল।

এক সংবাদকর্মীর সঙ্গে তামিমের বাক্যালাপে সে প্রমাণ মিলল। সংবাদকর্মীর সঙ্গে তামিমের ওই কথোপকথন ইতিমধ্যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল।

ভাইরাল সেই ভিডিওতে দেখা গেছে সংবাদকর্মীর উদ্দেশ্যে তামিম বলছেন, এই যে আপনারা আজব আজব নিউজ করেন, এটা কি ঠিক? মানুষদের আপনারা বিপদে ফেলে দেন, এর রহস্যটা কী?

জবাবে ওই সংবাদকর্মী তামিমের এই অভিযোগ নাকচ করে দেন। তিনি দাবি করেন, বাস্তব কোনো ঘটনা ঘটলেই নিউজ করেন তিনি।

সংবাদকর্মীর এমন দাবির বিপরীতে উদাহরণ রয়েছে বলে জানান তামিম। তিনি সহাস্যে বলে, ‘উদাহরণ দিতে চাইলে আপনি বিপদে পড়ে যাবেন।’

এ সময় চন্ডিকা হাথুরুসিংহ জাতীয় দলের কোচ থাকাকালীন একটি ঘটনার কথা সামনে নিয়ে আসেন তামিম। তিনি বলেন, ওই সময় হাথুরুসিংহের সঙ্গে তামিমকে জড়িয়ে একটি বির্তক উঠে। সেই বির্তকের জেরে তামিমকে নিয়ে ব্যাঙ্গাতক ছবি ছড়ায় সোশ্যাল মিডিয়ায়।

এছাড়াও কোনো এক ম্যাচে মাঠে জাতীয় সংগীত গাইতে আসেননি তামিম এমন একটি রিপোর্টের কথা উল্লেখ করেন তিনি। তিনি বলেন, সেদিন মাঠে আমার যাওয়া কথাই ছিল না। আমি ড্রেসিং রুমে দাঁড়িয়ে জাতীয় সংগীত গেয়েছিলাম। সংবাদে সে খবর আসেনি।

সংবাদকর্মীর সঙ্গে তামিমের এসব কথাবার্তা অনেকটা হাস্য রসিকতার মতোই দেখাচ্ছিল। কোনো বাক-বিতণ্ডার বিষয় ছিল না এটি।

তবে দুজনের কথোপোকথনের এই ভিডিওর পর ভক্তদের বেশ প্রশংসা জুটেছে তামিমের ঝুলিতে।অনেকেই বলেছেন, তামিমের বুদ্ধিতে কুপোকাত সাংবাদিক। কেউ কেউ বলছেন, সাংবাদিকের কথায় ছক্কা হাঁকালেন তামিম।

মন্তব্য লিখুন :