কেকেআরের পরাজয়ে কাঁদলেন এই চিয়ার্স লিডার

জিতলে প্লে অফের স্বপ্ন টিকে থাকবে। এমন কঠিন সমীকরণের ম্যাচে রাজস্থান রয়েলসের বিপক্ষে জয়ের পথেই ছিল কলকাতা নাইট রাইডার্স। কিন্তু রায়হান পরাগ ও জফরা আর্চারের খুনে ব্যাটিংয়ে শেষ পর্যন্ত হেরে যায় কলকাতা।

দিনেশ কার্তিকের ৯৭ রানের অনবদ্য ইনিংসের পরও ৩ উইকেটে হেরে যায় কলকাতা। দলের পরাজয়ে ক্রিকেটাররা যতোটা না হতাশ হয়েছেন চার চেয়েও কয়েকগুণ বেশি কষ্ট পেয়েছেন কলকাতার ভক্ত সমর্থকরা।

পেশাদারিত্বের খোলস থেকে বেরিয়ে সাপোর্টার বনে যাওয়া এই চিয়ার্স লিডার, কলকাতার পরাজয়ে আবেগ ধরে রাখতে না পেরে কেঁদেই ফেলেন।

জাফরা আর্চারের ব্যাটিং নৈপুণ্যে রাজস্থান রয়েলসের জয়। ইনিংসের শেষ দিকে গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তে মাত্র ১২ বলে দুই চার ও দুটি ছক্কায় অপরাজিত ২৭ রান করে দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছেদেন আর্চার।

কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিপক্ষে ১৭৬ রানের টার্গেট তাড়া করতে নেমে উদ্বোধনীতে ৫৩ রান করে রাজস্থান। এরপর নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারায়। দলের ব্যাটিং বিপর্যয়ের দিনে দায়িত্বশীলতার পরিচয় দেন রায়হান পরাগ।

ভারতীয় এই ব্যাটসম্যান দলকে জয়ের দ্বার প্রান্তে নিয়ে যান। জয়ের জন্য শেষ দিকে ৭ বলে প্রয়োজন ছিল মাত্র ৯ রান। খেলার এমন অবস্থায় ৩১ বলে ৪৭ রান করে ফেরেন পরাগ। তবে জাফরা আর্চারের ব্যাটিং নৈপুণ্যে জয়ের বন্দরে নোঙ্গর ফেলে রাজস্থান।

রাজস্থানের এই জয়ে বিফলে গেলে দিনেশ কার্তিকের ৫০ বলের অপরাজিত ৯৭ রানের ইনিংস।

এই জয়ে ১১ ম্যাচে ৮ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের সেই সপ্তম স্থানেই পড়ে রইল রাজস্থান। সমান ম্যাচে সমান ৮ পয়েন্ট নিয়ে ছয় নম্বরে কলকাতা। তবে ১১ ম্যাচে ১৬ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষে মহেন্দ্র সিং ধোনির নেতৃত্বাধীন চেন্নাই সুপার কিংস।

এর আগে রাজস্থান রয়েলসের বিপক্ষে ব্যাটিং তাণ্ডব চালিয়েছেন দিনেশ কার্তিক। দলের ব্যাটিং বিপর্যয়ের দিনে একাই লড়াই করে গেছেন কলকাতা নাইট রাইডার্সের এই অধিনায়ক।

একের পর এক বাউন্ডারি হাঁকিয়ে ৫০ বলে নয়টি ছক্কা ও সাতটি চারের সাহায্যে ৯৭ রান করে অপরাজিত থাকেন তিনি। মাত্র ৩ রানের জন্য সেঞ্চুরি মিসের আক্ষেপ নিয়ে মাঠ ছাড়েন ভারতীয় এই তারকা ক্রিকেটার।

সাম্প্রতিক সময়ে অফ ফর্মে ছিলেন দিনেশ কার্তিক। বৃহস্পতিবারের আগে আইপিএলে সবশেষ ৭ ম্যাচ খেলে মাত্র ৬৪ রান করেন কেকেআরের এই অধিনায়ক। অথচ তার ওপরই আস্থা রেখেছেন ভারতীয় ক্রিকেট দলের নির্বাচকরা। ফর্মে থাকা রিশব প্যান্টকে বাদ রেখে বিশ্বকাপ দলে নেয়া হয় কার্তিককে। এনিয়ে কম সমালোচনা হয়নি।

বৃহস্পতিবার রাজস্থানের বিপক্ষে ৫০ বলে ৯৭ রানের অসাধারণ ইনিংস খেলে সেই সমালোচনার জবাব দিলেন কার্তিক। তার ব্যাটিং তাণ্ডবে ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৭৫ রান সংগ্রহ করে শাহরুখ খানের দলটি।

এদিন আইপিএলের চলতি আসরের ৪৩তম ম্যাচে মুখোমুখি হয় কলকাতা ও রাজস্থান। কলকাতার ইডেন গার্ডেনসে অনুষ্ঠিত ম্যাচে টস হেরে প্রথমে ব্যাটিং করে স্বাগতিকরা।

প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমেই রাজস্থানের পেসার বরুণ অরুনের গতির মুখে পড়ে কলকাতা। দলীয় ৪২ রানে তিন ব্যাটসম্যানের উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায়।

এরপর সময়ের ব্যবধানে সাজঘরে ফেরেন কলকাতার অন্য ব্যাটসম্যানরা। দলের ব্যাটিং বিপর্যয়ের দিনে একাই লড়াই করে যান অধিনায়ক কার্তিক। তার একার লড়াইয়ে শেষ পর্যন্ত ১৭৫ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়ে কেকেআর।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

কলকাতা: ২০ ওভারে ১৭৫/৬ (কার্তিক ৯৭*, নিথিশ রানা ২১; বরুণ অরুন ২/২০)।

রাজস্থান: ১৯.২ ওভারে ১৭৭/৭ (রায়ান পরাগ ৪৭, রাহানে ৩৪, জোশেপ ২৭*)।

ফল: রাজস্থান ৩ উইকেটে জয়ী।

ম্যাচসেরা: বরুণ অরুন (রাজস্থান)।


মন্তব্য লিখুন :