বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হতে পারেন যে ৭ ব্যাটসম্যান

আগামী ৩০ মে শুরু হতে যাচ্ছে ২০১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপের দ্বাদশ আসর । ওভালে স্বাগতিক ইংল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকার মধ্যকার ম্যাচ দিয়ে শুরু হবে আসর। লর্ডসে ১৪ জুলাই অনুষ্ঠিত হবে ফাইনাল। এবারের আসরে মোট ১০টি দল অংশ নিচ্ছে। আইসিসি র‌্যাংকিংয়ের শীর্ষ দল সরাসরি এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও আফগানিস্তান বাছাই পর্ব খেলে টুর্নামেন্টে খেলার ছাড়পত্র লাভ করেছে।ইংল্যান্ডের পিচগুলো ফ্ল্যাট এবং হবে ব্যাটসম্যানদের সহায়ক। বিশ্বকাপের দ্বাদশ আসরে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হতে পারে এমন সাত ব্যাটসম্যানের দিকে আলোকপাত করা যাক:

১ কেন উইলিয়ামসন (নিউজিল্যান্ড) :

নিঃসন্দেহে নিউজিল্যান্ডের হয়ে খেলা এ যাবত কালের সেরা ব্যাটসম্যানদের একজন কেন উইলিয়ামসন। ২০১১ এবং ২০১৫ উভয় বিশ্বকাপেই নিউজিল্যান্ডের হয়ে খেলেছেন তিনি। তবে দল খুব ভাল করতে না পারায় দুই আসরই ভুলে যেতে চাইবেন তিনি। ২০১৭ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতেও দলের সর্বোচ্চ রানের মালিক ছিলেন তিনি। ওয়ানডে ক্রিকেটে ব্যাটসম্যান র‌্যাংকিংয়ে বর্তমানে কেনের অবস্থান ১১ নম্বরে। তবে ভালভাবে বিশ্বকাপ শেষ করতে পারলে সহজেই জায়গা পেতে পারেন শীর্ষ পাঁ-এ। অবশ্য তার কাউন্টি খেলার অভিজ্ঞতাও ইংলিশ কন্ডিশনে রান পেতে তার জন্য সনহায়ক হতে পারে।

ব্ল্যাক ক্যাপদের মিডল অর্ডার অনেকটাই নির্ভর করবে রস টেইলর ও টম লাথামসহ তার ওপড়। আসন্ন বিশ্বকাপে দলকে টুর্নামেন্টের শেষ পর্যন্ত নিয়ে যাওয়ার সুযোগ সৃষ্টি করতে হলে ভাল করতে হবে কেনকে। ২০১৮ সালে ১১টি ওয়ানডে খেলেছেন নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক এবং গত বছর এ ফর্মেটের নিজ দলের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান করেছেন তিনি। এ সময়ে দুই সেঞ্চুরি ও একটি হাফ সেঞ্চুরিসহ ৪৬৮ রান করেছেনকেন। ৭৫.৯৭ গড়ে তার ব্যাটিং গড় রান ছিল ৪৬.৮।

২ রোহিত শর্মা (ভারত) :

এই মুহূর্তে ওয়ানডে ক্রিকেটে সেরা ওপেনার হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন রোহিত শর্মা। ২০১৫ বিশ্বকাপে ভারতীয়দের মধ্যে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রানের মালিক ছিলেন তিনি। এছাড়া ২০১৭ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতেও দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান করেছিলেন তিনি।

ওয়ানডে ব্যাটিসম্যান র‌্যাংকিংয়ে বর্তমানে দ্বিতীয় স্থানে আছেন রোহিত। কোহলি এবং ধাওয়ানসহ তিনি যে কোন প্রতিপক্ষের দু:স্বপ্নের নাম। পুরো টুর্নামেন্টেই ব্যাট হাতে ছড়ি ঘুড়াতে পারেন এ তিন জন।

বর্তমান সময়ে সবচেয়ে সুন্দর ব্যাটসম্যানদের একজন হিসেবে বিবেচিত রোহিত ২০১৮ সালে ১৯টি ওয়ানডে খেলেছেন এবং এ ফর্মেটে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান করেছেন। গত বছর ৫ সেঞ্চুরি ও তিন হাফ সেঞ্চুরিতে তিনি মোট ১০৩০ রান করেছেন। স্ট্রাইক রেট ১০০.৯ এবং ব্যাটিং গড় ছিল ৭৩.৫৭। ভারতের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে গত বছর তিনি ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দুইটি ১৫০ প্লাস রানের ইনিংস খেলেছেন। মুম্বাইয়ে ২৯ অক্টোবর ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তার সর্বোচ্চ রান ছিল ১৬২। কোহলির অনুপুস্থিতিতে গত বছর সপ্তম এশিয়া কাপের শিরোপা জয়ী ভারতীয় দলের নেতৃত্ব দিয়েছেন তিনি।

৩ জো রুট (ইংল্যান্ড) :

ইংল্যান্ডের সবচেয়ে সফল ব্যাটসম্যান জো রুট। ২০১৭ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে ইংল্যান্ড দলের সর্বোচ্চ রানের মালিক ছিলেন তিনি। বিশ্বকাপ ইতিহাসে ইংল্যান্ডের সবচেয়ে কম বয়সী ব্যাটসম্যান হিসেবে সেঞ্চুরি করেছেন তিনি। ২০১৫ বিশ্বকাপে ওয়েস্টপ্যাক স্টেডিয়ামে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচে এ কৃতি গড়েছিলেন রুট।

ওয়ানডে ব্যাটসম্যান র‌্যাংকিংয়ে বর্তমানে ষষ্ঠ নম্বরে আছেন রুট। ওয়ানডে র‌্যাংকিংয়ে শীর্ষে থাকা ভারতীয় বিরাট কোহলির ঘাড়ে নিশ্বাস ফেলবেন তিনি। এছাড়া বিশ্বকাপে হোম কন্ডিশনও তার ব্যাটিং সহায়ক হবে।

২০১৮ সালে ২২টি ওয়ানডে ম্যাচ খেলেছেন রুট এবং গত গ্রীষ্মে এ ফর্মেটে ইংল্যান্ডে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান পেয়েছেন তিনি। তিন সেঞ্চুরি এবং পাঁচ হাফ সেঞ্চুরিতে এ সময়ে তার মোট রান ছিল ৯৪৬। স্ট্রাইক রেট ৮৩.৯৪ এবং গড় ৫৯.১৩। ইংলিশ ক্রিকেটারদের মধ্যে সর্বোচ্চ ব্যাটিং গড় রান তারই।

৪ তামিম ইকবাল (বাংলাদেশ) :

এ প্রজন্মের সবচেয়ে নিবেদিত ব্যাটসম্যানদের একজন হলেন তামিম ইকবাল। ইনজুরি সত্ত্বেও দুবাইতে ২০১৮ এশিয়া কাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে পার্টনার মুশফিকুর রহিমের সাহায্যে এগিয়ে এসে প্রমান করেছেন ক্রিকেটের প্রতি কতটা নিবেদিত তিনি।

২০১৭ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে তৃতীয় সর্বোচ্চ রান করেছিলেন তামিম এবং ইংলিশ কন্ডিশনে বেশ স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন তিনি।

ওয়ানডে ব্যাটসম্যান র‌্যাংকিং তালিকায় ২০তম স্থানে আছেন তামিম। টপ অর্ডারে মারমুখি ব্যাটিংয়ের জন্য সুপরিচিত এ ব্যাটসম্যান বিশ্বকাপ দিয়ে জায়গা করে নিতে পারেন শীর্ষ দশে।

২০১৮ সালে ১২টি ওয়ানডে খেলেছেন তিনি। বাংলাদেশি খেলোয়াড়দের এ ফর্মেটে সর্বোচ্চ ৬৮৪ রান করেছন তিনি। এ সময়ে ৭৬.৩৩ স্ট্রাইক রেটে ৮৫.৫ গড়ে তার ছিল দুই সেঞ্চুরি ও ছয় হাফ সেঞ্চুরি।

ওয়ানেড ক্রিকেটে বাংলাদেশি খেলোয়াড়দের মধ্যে সবচেয়ে বেশি রানের মালিক তামিম। এছাড়া সিমিত ওভারের ক্রিকেটে দেশের দারুন উন্নতিতে মূল ভুমিকা পালনকারীও তিনি।

৫ বিরাট কোহলি (ভারত) :

বর্তমান প্রজন্মের সবচেয়ে প্রভাবশালী ব্যাটসম্যান ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি। ইতোপুর্বে ২০১১ এবং ২০১৫ বিশ্বকাপ খেলেছেন তিনি। তবে ২০১১ বিশ্বকাপটি কখনোই ভুলতে পারবেন না তিনি। কেননা মহেন্দ্র সিং ধোনির নেতৃত্বে এ আসরের শিরোপা জিতেছিল ভারত।

তবে ২০১৫ আসরটিও ছিল তার জন্য বেশ ভাল। তবে চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়ার কাছে হেরে সেমিফাইনাল থেকে বিদায় নিতে হয় ভারতকে। ২০১৭ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে ভারতের তৃতীয় সর্বোচ্চ রানের মালিক ছিলেন এ তারকা ব্যাটসম্যান। বর্তমানে ওয়ানডে ক্রিকেটে ব্যাটসম্যানদের তালিকায় শীর্ষে আছেন কোহলি। তবে লক্ষ্যমাত্র নিয়ে খেলতে নেমে এখন পর্যন্ত বিশ্বকাপের কোন ম্যাচে হাফ সেঞ্চুরি অতিক্রম করতে পারেননি তিনি। তারপরও ভারতীয় সমর্থকরা তার ওপড়ই আস্থা রাখবে এবং আশা করবে এ বিশ্বকাপে কোহলি ভাল কিছু এনে দিতে পারবেন।

২০১৮ সালে ১৪ ওয়ানডে ম্যাচে নেতৃত্ব দিয়ে ভারতকে জয় এনে দিয়েছেন ৯টিতে। জয়ের হার ৬৪.২৯। ছয় সেঞ্চুরি এবং তিন হাফ সেঞ্চুরিতে ২০১৮ সালে ওয়ানডেতে সর্বোচ্চ ১২০২ রান করেছেন কোহলি।

তার স্ট্রাইক রেট ১০২.৫৫ এবং গড় রান ছিল১৩৩.৫৫। এক বছরে ওয়ানডে ক্রিকেটে ১৫০’র বেশি দুটি ইনিংস খেলা প্রথম ভারতীয় অধিনায়ক তিনি। এ ছাড়া কোন দ্বিাপাক্ষিক ওয়ানডে সিরিজে পাঁচশ’র বেশি রান করা ভারতীয় একমাত্র ব্যাটসম্যানও তিনি।

৬ জনি বেয়ারস্টো (ইংল্যান্ড) :

এক দিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ইংল্যান্ডের সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যানে পরিনত হয়েছেন জনি বেয়ারসেস্টা। ২০১৭ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনালে কার্ডিফে পাকিস্তানের বিপক্ষে আইসিসি ৫০ ওভার ইভেন্টে অভিষেক হয় তার। বাজে ফর্মের কারণে টুর্নামেন্টের শেষ দিকে জেসন রয়ের পরিবর্তিত হিসেবে দলে সুযোগ পান বেয়ারস্টো। তারপর থেকে আর কখন্ োতাকে পিছে ফিরে তাকাতে হয়নি। বর্তমানে ওয়ানডে ব্যাটসম্যান র‌্যাংকিংয়ের ১৬তম অবস্থানে আছেন। নিজের প্রথম বিশ্বকাপে নিজ ভক্তদের প্রত্যাশা পুরনে তিনি সর্বোচ্চটা উজার করে দেবেন এবং প্রবেশ করতে পারেন র‌্যাংকিংয়ের সেরা দশ-এ।

২০১৮ সালে ২২টি ওয়ানডে ম্যাচ খেলা এ তারকা ব্যাটসম্যান এ ফর্মেটে বছরের তৃতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারী। এ সময়ে ১১৮.২২ স্ট্রাইক রেটে ৪৬ দশমিক৫৯ গড়ে চার সেঞ্চুরি ও দুই হাফ সেঞ্চুরিতে বেয়ারস্টো মোট ১০২৫ রান করেছেন। ৬০ বল করে মোকাবেলায় এক বছরে ওয়ানডে ক্রিকেটে দুই সেঞ্চুরির মাইলফলক স্পর্শ করা একমাত্র খেলোয়াড় তিনি।

৭ শিখর ধাওয়ান (ভারত) :

আইসিসির বিভিন্ন ইভেন্টে ভারতের নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যান হিসেবে ভূমিকা পালন করে আসছেন শিখর ধাওয়ান। ২০১৩ ও ২০১৭ সালের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে পর পর দুইবার গোল্ডেন ব্যাট পাওয়া একমাত্র ব্যাটসম্যান তিনি। ২০১৫ বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারীও তিনি। এছাড়া কম ম্যাচে ওয়ানডেতে এক হাজার রানও করেছেন ধাওয়ান।

বর্তমানে ওয়ানডে র‌্যাংকিংয়ের ১৩তম স্থানে থাকা এ ব্যাটসম্যান বিশ্বকাপে ভাল করতে পারলে ফিরতে পারেন শীর্ষ পাঁচ-এ।

২০১৮ সালে ১৯টি ওয়ানডে খেলে ভারতের তৃতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারী এ স্টাইলিস্ট ব্যাটসম্যান। পুরো বছরে তিন সেঞ্চুরি এবং দুই হাফ সেঞ্চুরিতে৪৯.৮৩ গড়ে তার মোট রান ৯৮৭। স্ট্রাইক রেট ১০২.২৮। ২০১৮ এশিয়া কাপের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হওয়া ধাওয়ান নিজের শতমত ওয়ানডেতে সেঞ্চুরি পাওয়া একমাত্র খেলোয়াড়। ১০ ফেব্রুয়ারী জোহানেসবার্গে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ম্যাচে এ মাইলফলক স্পর্শ করেন তিনি।

ধাওয়ানের রেকর্ডই তার পক্ষে কথা বলে এবং যদি নিজের মেধার প্রতি সুবিচার করতে পারেন তবে আসন্ন বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারীদের তালিকায় স্থান পেতে পারেন তিনি।

মন্তব্য লিখুন :