মুরসির মৃত্যুর পর সালাহর আচরণ নিয়ে সমালোচনার ঝড়

আটক থাকা অবস্থায় মিসরের প্রথম গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মুরসি মারা যাওয়ার পর লিভারপুল তারকা মোহাম্মদ সালাহ তার নীরবতা নিয়ে মিসরের বিভিন্ন মহল প্রশ্ন তুলেছে। এ খবর জানিয়েছে তুর্কি সংবাদমাধ্যম ইয়েনি শাফাক।

খবরে বলা হয়, মুরসির মৃত্যুর পর ফুটবল তারকা সালাহ এখন পর্যন্ত নীরব রয়েছেন। তবে তিনি সমবেদনার পরিবর্তে লিভারপুলের সংবাদ এবং তার ছুটি কাটানোর ছবি ধারাবাহিকভাবে পোস্ট করছেন।

সালাহ তার পারফরমেন্সে মুসলিম বিশ্বের একজন রোল মডেল হয়ে উঠেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সালাহর উদ্দেশে সমালোচনা শুরু হয়েছে।

এদিকে মুরসির মৃত্যুতে দেশটির অন্যতম ফুটবল তারকা মোহাম্মদ আবু তিরিকা এক টুইট বার্তায় সমবেদনা প্রকাশ করে লেখেন, আশা করি সালাহ খুব শীঘ্রই এটি অনুসরণ করবে।

গত সোমবার আদালতে সাবেক প্রেসিডেন্ট মুরসির বিরুদ্ধে অভিযোগের শুনানির সময় তিনি মারা যান। ২০১২ সালের ১২ জুন হোসনি মোবারক গণআন্দোলনের মুখে ক্ষমতাচ্যুত হলে গণতান্ত্রিক নির্বাচনে মুরসি জয়লাভ করেন। মাত্র এক বছরের ব্যবধানে (২০১৩ সালে) তৎকালীন সেনাপ্রধান আবদুল ফাত্তাহ আল সিসির নেতৃত্বাধীন অভ্যুত্থানে তিনি ক্ষমতাচ্যুত হন।

সিসি ক্ষমতাগ্রহণের পরে মুরসির শতাধিক সমর্থককে সহিংসতার অভিযোগে ফাঁসি দেন। এছাড়া হাজার হাজার সমর্থককে কারাগারে আটকে রাখেন।

সম্প্রতি মুরসির দল ব্রাদারহুডকে আনুষ্ঠানিকভাবে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে ঘোষণা করে স্বৈরাচারী সিসি সরকার । সেনা অভ্যুত্থানে মুরসি গ্রেফতার হলে তাতে যুক্তরাষ্ট্র উষ্ণ ভূমিকা পালন করে। ওই সময়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা সেনাসমর্থিত মিসরের সিসি সরকারকে সমর্থন করেন।

মন্তব্য লিখুন :