রশিদ-নবীদের এ কেমন আচরণ!

শক্তিমত্তার বিচারে বাংলাদেশ ও আফগানিস্তানের মধ্যে রয়েছে সুস্পষ্ট পার্থক্য। তবে আফগান ক্রিকেটাররা যেন বাংলাদেশকে পাত্তাই দিচ্ছিলেন না। ম্যাচের আগে তাদের অভিব্যক্তি কিংবা ম্যাচের প্রথম ইনিংসে শরীরী ভাষা তাই বলছিল।

তাই বাংলাদেশের কাছে পরাজয়কে যেন সহজভাবে নিতে পারেননি আফগান ক্রিকেটাররা। এর আরও একটি দৃষ্টান্ত পাওয়া গেল রশিদ খানের আচরণে। আফগানিস্তানের আলোচিত এই স্পিনার বাংলাদেশের কাছে হারার পর এক সমর্থককে মারতে তেড়ে গিয়েছিলেন!

বাংলাদেশের কাছে ৬২ রানে হারার পর আফগানিস্তানের ক্রিকেটাররা ফিরছিলেন ড্রেসিংরুমে। পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান চলাকালে সাকিব তখন নিচ্ছেন ম্যান অব দ্যা ম্যাচের খেতাব। রশিদরা ড্রেসিংরুমের সিঁড়ি ধরে উঠতে থাকলে আফগানিস্তানেরই এক সমর্থক বোধহয় ব্যঙ্গ করেছিলেন রশিদকে।

এতে মেজাজ ধরে রাখতে পারেননি ২০ বছর বয়সী এই ক্রিকেটার। কিছুক্ষণ সিঁড়িতে দাঁড়িয়ে আড়চোখে তাকানোর পর নিচে নেমে ছুটে যাচ্ছিলেন ঐ আফগান সমর্থকের দিকে। নিরাপত্তারক্ষীরা তাকে রুখে দিলেও দূর থেকেই ইশারা করছিলেন ঐ সমর্থককে প্রহার করার।

শুধু তাই নয়। ম্যাচের পর ছড়িয়ে পড়া আরেক ভিডিওতে দেখা যায়- ড্রেসিংরুমে যাওয়ার সময় আফগান সমর্থকরা উত্যক্ত করছিলেন স্বদেশী ক্রিকেটারদের। সাজঘর লাগোয়া সেই গ্যালারিতে ছিলেন অনেক বাংলাদেশি সমর্থকও। পেশাদার খেলোয়াড় হিসেবে স্বদেশী সমর্থকদের সমালোচনা সহ্য করাটাই সমীচীন হত রশিদ-নবীদের জন্য।

কিন্তু অবাক করে দিয়ে তারা মধ্যাঙ্গুলি প্রদর্শন করেন, যা স্পষ্টতই অশালীন ইঙ্গিত। যে কজন খেলোয়াড় এমন দৃশ্যের অবতারণা করেছিলেন তাদের মধ্যে নাজিবউল্লাহ জাদরান ও নবীর চেহারা ছিল স্পষ্ট।

মন্তব্য লিখুন :