রিয়াল-বার্সা কিনেছে যাদের, ছেড়েছে যাদের

শুরু হয়ে গেছে ইউরোপের ফুটবলের গ্রীস্মের দলবদল। প্রত্যেক দলই নেমে পড়েছে তাদের পছন্দের পুটবলারকে দলে ভেড়াতে। সেই সাথে বিক্রি করে দেওয়া হচ্ছে দলে অপ্রয়োজনীয় ফুটবলারদের।

ব্যতিক্রম নয় ইউরোপের ফুটবলের দুই জায়ান্ট রিয়াল মাদ্রিদ ও বার্সেলোনাও। ইতোমধ্যেই তারা নেমে পড়েছে দলবদলে। দুই দলই বেশ কয়েকজনকে দলে ভিড়িয়েছে। যদিও এখনো তারা কাউকে ছাড়েনি।

রিয়াল মাদ্রিদ

মাদ্রিদের ক্লাবটি এখন পর্যন্ত চারজনকে দলে ভিড়িয়েছে। এছাড়া একজনের সাথে চুক্তি ফাইনাল করে রেখেছে।

জুনের দলবদল শুরু হওয়ার আগেই তারা সান্তোস থেকে ৫৮ মিলিয়নে দলে ভিড়িয়েছে ব্রাজিলের উদীয়মান তরুণ রদ্রিগোকে। এই তরুণকে বলা হয় ওয়ান্ডার বয়। তাকে ব্রাজিলের পরবর্তী নেইমারও বলা হয়।

মাসখানেক আগে এডার মিলিতোকে ৫০ মিলিয়নে দলে ভিড়িয়েছিল রিয়াল। এটা কোনো ডিফেন্ডারের পেছনে রিয়ালের সর্বোচ্চ খরচ। এই তরুণ মূলত সেন্ট্রাল ডিফেন্ডার হিসেবে খেলে থাকেন। ব্রাজিলের হয়ে মাত্র ২ ম্যাচ খেলা ২১ বছরের তরুণকে সার্জিও র্যামোসের বিকল্প হিসেবে দলে ভেড়ায় লস ব্লাঙ্কোসরা।

জিনেদিন জিদানের চাওয়া ছিল ফরাসি ডিফেন্ডার ফারল্যান্ড মেন্ডি।। লিওঁ থেকে তাই তাকে ৪৮ মিলিয়নে কিনেছে রিয়াল মাদ্রিদ। এই লেফট ফুলব্যাকের সঙ্গে ছয় বছরের চুক্তি করেছে মাদ্রিদ। মূলত মার্সেলোর বিকল্প তিনি।

চেলসির তারকা স্ট্রাইকার এডেন হ্যাজার্ডের সাথে মাদ্রিদ ৫ বছরের চুক্তি করেছে। এই তারকা গতকাল আনুষ্ঠানিকভাবে মাদ্রিদের যোগ দিয়েছেন। তবে তার চুক্তির অঙ্কের ব্যাপারে জানা যায়নি।

বার্সেলোনা

স্প্যানিশ জায়ান্টরা এখন পর্যন্ত দুইজনকে দলে ভিড়িয়েছে। এছাড়া আতোয়ান গ্রিজম্যানের সাথে চুক্তি প্রায় চূড়ান্ত করেছে।

বার্সা দলবদলের মাঝেই আয়াক্স থেকে কিনেছে ডাচ মিডফিল্ডার ফ্রাঙ্কি ডি জংকে। এই তরুণের পেছনে তারা খরচ করেছে ৭৫ মিলিয়ন। খুব শিগগিরই দলের সাথে যোগ দেবেন ফ্রাঙ্কি।

সবাইকে অবাক করে দিয়ে এফসি গ্রোনোগাইন থেকে লুডোভিট রেইসকে দলে ভিড়িয়েছে কাতালানরা। এই মিডফিল্ডারের পেছনে তাদের খরচ মাত্র সাড়ে ৩ মিলিয়ন।

অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদের ফরাসি স্ট্রাইকার বার্সেলোনায় যাচ্ছেন গুঞ্জনটা অনেকদিনের। এবার সে গুঞ্জনই সত্যি হচ্ছে। বার্সেলোনাতেই হচ্ছে তার পরবর্তী ঠিকানা। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদের সিইও মিগুয়েল অ্যাঞ্জেল।

মন্তব্য লিখুন :