খেলোয়াড়রা ভেঙে পড়েছেন, এটা বিপর্যকর: উইলিয়ামসন

বিশ্বকাপজয়ী ইংল্যান্ডকে শুভেচ্ছা জানিয়ে নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন বলেছেন, তারা (ইংল্যান্ড) চমৎকার খেলেছে। শিরোপাটা তাদের প্রাপ্য। এটা চ্যালেজিং একটা খেলা ছিল।

তিনি বলেন, আমরা যা প্রত্যাশা করেছিলাম, পিচ ছিল তার চেয়ে ভিন্ন। এখানে ৩০০ রানের বেশি স্কোর ছিল না। লড়াই করে যাওয়ার জন্য আমার দলকে অবশ্যই ধন্যবাদ। যদিও আজ এটা কোনো গুরুত্ব বহন করে না। খেলোয়াড়রা ভেঙে পড়েছেন, এটা বিপর্যকর।

তিনি বলেন, এটা ছিল ক্রিকেটের একটি চমৎকার খেলা। খেলাটা শেষ বল পর্যন্ত গড়িয়েছে। শেষ বলের পর আরেকটি ছোট ম্যাচে গিয়ে দাঁড়িয়েছিল। যা সত্যিই কঠিন। কিন্তু সব কৃতিত্ব ইংল্যান্ডের। এখানে আমাদের জন্য ইতিবাচক অনেক কিছু আছে।

এদিকে সাকিব আল হাসানকে বঞ্চিত করে বিশ্বকাপের প্লেয়ার অব দ্য টুর্নামেন্ট দেয়া হয়েছে নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনকে।

এ পুরস্কারটি পাওয়ার দাবিদার ছিলেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। এবারের বিশ্বকাপে ব্যাট হাতে ৬০৬ রান করার পাশাপাশি বল হাতেও শিকার করেন ১১ উইকেট।

অথচ উইলিয়ামসনের রান ছিল মাত্র ৫৭৮ রান।

এ নিয়ে বাংলাদেশি সমর্থকদের মাঝে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। কারণ, ব্যাটিং পারফরমেন্সের হিসেবে দিলেও তো উইলিয়ামসন সাকিবের পেছনে, আর বোলিং নৈপুণ্য ছিল সাকিবের বাড়তি পাওনা। তাই কপিল দেবসহ বিশ্বের কিংবদন্তি ক্রিকেটাররা সাকিবকেই প্লেয়ার অব দ্য টুর্নামেন্ট বিবেচনা করেছিলেন।

বিশ্বসেরা এ অলরাউন্ডার ব্যাট হাতে ব্যাক টু ব্যাক সেঞ্চুরি করার পাশাপাশি পাঁচটি ফিফটির সাহায্যে আট ম্যাচে ৬০৬ রান করেন। এছাড়া বল হাতে শিকার করেন ১১ উইকেট।

এর আগে বিশ্বকাপের পারফরম্যান্স বিবেচনায় সাকিব আল হাসান, জেসন রয়, রোহিত শর্মা, মিচেল স্টার্ক, ডেভিড ওয়ার্নার ও উইলিয়ামসন প্লেয়ার অব দ্য টুর্নামেন্ট হিসেবে সম্ভাব্য তালিকায় ছিলেন।

বিশ্বকাপে ৯ ম্যাচে রেকর্ড পাঁচটি সেঞ্চুরির সাহায্যে ৬৪৮ রান করেন ভারতীয় তারকা ওপেনার রোহিত শর্মা। তার চেয়ে এক ম্যাচ বেশি খেলে তিনটি সেঞ্চুরিতে ৬৪৭ রান করেন অস্ট্রেলিয়ার তারকা ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার।

মাত্র ৮ ম্যাচ খেলে দুই সেঞ্চুরি ও পাঁচটি ফিফটির সাহায্যে ৬০৬ রান করেন সাকিব আল হাসান।

মন্তব্য লিখুন :