রানটা কম হয়ে গেছে ইংল্যান্ডের

সেমিফাইনালে যাওয়ার লড়াইয়ে টস জিতে আগে ব্যাট করা ইংল্যান্ড দুই ওপেনারের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ের পরও মাত্র ৩০৫ রান তুলতে সক্ষম হয়েছে। নিউজিল্যান্ডের জিততে চাই এখন ৩০৬ রান।

আগে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ঝড় তোলেন জনি বেয়ারস্টো আর জেসন রয়। এই দুজন মাত্র ৬ ওভারের সময়ই দলীয় অর্ধশতক পূর্ণ করেন। ১০০ রান আসে ১৪তম ওভারে। এরপর ১৯তম ওভারে এসে দলীয় ১২৩ রানের মাথায় আউট হন রয়।

এর আগে তিনি ৬১ বলে করেন ৬০ রান। এরপর জো রুটকে নিয়ে জুটি গড়েন বেয়ারস্টো। এই জুটিতে আসে ৭১ রান। ৩০তম ওভারে রুট ২৪ রান করে ফিরলে ভাঙে জুটি। তবে অপরপ্রান্ত আগলে খেলে টানা দ্বিতীয় সেঞ্চুরি তুলে নেন বেয়ারস্টো।

তবে ইনিংসটাকে বড় করতে পারেননি তিনি। দলীয় ২০৬ রানের মাথায় ৯৯ বলে ১০৬ রান করে শিকার হন ম্যাট হেনরির। তখন ওভার ছিল ৩২। এমন অবস্থায় ধারণা করা হচ্ছিল ৩৬০ থেকে ৩৭০ রান হবে। তবে বেয়ারস্টোর বিদায়ের পরই সব পাল্টে যায়।

একে একে বিদায় নিতে থাকেন ইংলিশ ব্যাটসম্যানরা। দলীয় ২১৪ রানের মাথায় ১১ রান করে জস বাটলার, ২৪৮ রানের মাথায় বেন স্টোকস বিদায় নেন। আউট হওয়ার আগে ২৭ বলে স্টোকস করেন ১১ রান। এতেই সব পাল্টে যায়।

৪৫ ওভারের সময় ওকস যখন আউট হন তখন ইংলিশদের সংগ্রহ ২৫৯। মানে রুটের বিদায়ের পর ১৫ ওভারে মাত্র ৬৫ রান আসে। তাতেই থেমে যায় রানের চাকা। একসময় মনে হয়েছির ৩০০ রানও হবে না। তবে শেষদিকে ইয়ন মরগান আর আদিল রশিদের ব্যাটে ৮ উইকেটে ৩০৫ রান তুলে ইংলিশরা।

ট্রেন্ট বোল্ট, টিম সাউদি আর জিমি নিশাম দুইটি করে উইকেট নেন।

মন্তব্য লিখুন :