বিশ্বকাপ: টুর্নামেন্ট সেরার পুরস্কার কী সাকিব পাবেন?

এবারের বিশ্বকাপে সাকিব আল হাসানের পারফরম্যান্সে মুগ্ধ হননি এমন কাউকে খুঁজে পাওয়া যাবে না। ব্যাটে-বলে অনন্য ভূমিকায় সাকিব বন্দনায় কে ছিলেন না? টম মুডি, ইয়ান পন্ট থেকে শুরু করে সাবেক লিজেন্ডরা গত কয়েক দিন টুইটার দুনিয়া ভাসিয়েছেন সাকিব বন্দনায়।

এমনকি সাবেক অজি ক্রিকেটার মাইক হাসিও টুর্নামেন্ট সেরার তকমাটা জুড়ে দিয়েছিলেন সাকিবকে! পাশাপাশি বাংলাদেশি ভক্তদেরও আশা এবার টুর্নামেন্ট সেরার পুরস্কারটা সাকিবের হাতেই উঠবে।

এবারের টুর্নামেন্টে ৮ ম্যাচ খেলে ব্যাট হাতে ৮৪ গড়ে সাকিব করেছেন ৬০৬ রান। রয়েছে দুইটি সেঞ্চুরি আর পাঁচটি হাফসেঞ্চুরি। বল হাতে এই তারকা অলরাউন্ডার নেন ১১ উইকেট। যার মধ্যে একটি পাঁচ উইকেটের হল আছে।

এবার সাকিবের প্রতিদ্বন্দ্বী বেশ কয়েকজন। ভারতের রোহিত শর্মা, অস্ট্রেলিয়ার ডেভিড ওয়ার্নার, অ্যারন ফিঞ্চ, মিচেল স্টার্ক, ইংল্যান্ডের জো রুট, নিউজিল্যান্ডের কেন উইলিয়ামসন।

তবে সাকিবের মূল প্রতিদ্বন্দ্বী হচ্ছেন রোহিত শর্মা, মিচেল স্টার্ক আর ডেভিড ওয়ার্নার। রোহিত ৮ ম্যাচ খেলে ইতোমধ্যেই করেছেন ৬৪৭ রান। তার আছে পাঁচটি সেঞ্চুরি। চারবার পেয়েছেন ম্যাচসেরার পুরস্কার। তার চেয়ে বড় কথা দলকে নিয়ে গেছেন সেমিফাইনালে। যেখানে সাকিব দলকে সেমিতে টেনে নিতে ব্যর্থ হয়েছেন।

৯ ম্যাচে ডেভিড ওয়ার্নারের রান ৬২৭। তার আছে তিন সেঞ্চুরি। ওয়ার্নারের দল অস্ট্রেলিয়াও পৌঁছে গেছে সেমিফাইনালে। সম্ভাবনা আছে শিরোপা জেতারও। এছাড়া মিচেল স্টার্ক নিয়েছেন ২৬ উইকেট। দলকে সেমিতে নিতে তার ভূমিকা ছিল অসামান্য। সুতরাং তিনিও থাকবেন টুর্নামেন্ট সেরার লড়াইয়ে।

তবে জো রুট, কেন উইলিয়ামসনও এই দৌড়ে চলে আসতে পারেন সেমিতে ভালো কিছু করে। তবে যদি পারফর্ম বিবেচনা করা হয় তাহলে সবার চেয়ে এগিয়ে থাকবেন সাকিব। কিন্তু ব্যাপারটা হচ্ছে টুর্নামেন্ট সেরা হতে শুধু পারফর্ম করলেই হয় না, দলকে জেতাতেও অবদান রাখতে হয়।

যেখানে রোহিত-ওয়ার্নাররা দলকে সেমিতে নিয়ে গেছেন সেখানে সাকিব বা প্রথম রাউন্ড থেকেই। এছাড়া বিবেচনা করা হবে ম্যাচসেরার ব্যাপারটি। সে হিসেবে সাকিব অনেকটাই পিছিয়ে পড়বে। তবে এ ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে আইসিসির গঠিত প্যানেল।

মন্তব্য লিখুন :