৪৯৩ রানের অবিশ্বাস্য টি-২০ ম্যাচ

সিপিএল মানেই যেন রানবন্যা। কয়েকদিন আগে ২৪১ রান করেও হারতে হয়েছিল ক্রিস গেইলের দল জামাইকা থালাওয়াসকে। এবার আরও একটি হার নিয়ে মাঠ ছাড়তে হলো তাদের। তবে এবার পরে ব্যাটিং করে।

শুক্রবার ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লীগে ইতিহাস গড়েছে কাইরন পোলার্ডের নেতৃত্বাধীন ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্স। জামাইকা থালাওয়াসের বিরুদ্ধে ২ উইকেটে ২৬৭ রান তুলে তারা। যা টি-২০ ক্রিকেটের ইতিহাসে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ স্কোর ও ক্যারিবিয়ান লীগে সর্বোচ্চ রান। জবাবে ২২৬ রান তুলে জামাইকা। সব মিলিয়ে ম্যাচে হয় ৪৯৩ রান।

টি-২০ ফর্ম্যাট সর্বোচ্চ রান রয়েছে আফগানিস্তান ও চেক প্রজাতন্ত্রের দখলে। আয়ারল্যান্ডের বিরুদ্ধে আফগানিস্তান ও তুরস্কের বিরুদ্ধে চেক প্রজাতন্ত্র ২৭৮ রান করে যুগ্মভাবে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড নিজেদের দখলে রেখেছ।

নাইট রাইডার্স ও থালাওয়াস ম্যাচে ৩৫টি ছয় হয়েছে। ছক্কা হাঁকানোর দিক থেকেও টি-২০ ক্রিকেটের ইতিহাসে এটাও দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। টি-২০ ক্রিকেটে সর্বাধিক ৩৭টি ছক্কা হাঁকানোর রেকর্ড রয়েছে। মঙ্গলবার সেন্ট কিটস নেভিস পোট্রেটস ও জমাইকা থালাওয়াস ম্যাচে ৩৭টি ছক্কা হয়।

এর আগে, গত বছর বাখ লেজেন্ডস ও কাবুল জওয়ানান ম্যাচে প্রথমবার ৩৭টি ছয় হয়। ঘটনাচক্রে তিনটি ম্যাচেই খেলেছেন ক্যারিবিয়ান দৈত্য ক্রিস গেইল।

শুক্রবার রাতে নাইট রাইডার্সের বিরুদ্ধে টস জিতে প্রথমে বোলিং নেন জামাইকা থালওয়াস ক্যাপ্টেন গেইল। নাইট রাইডার্সের হয়ে দুরন্ত ইনিংস খেলেন লেন্ডল সিমন্স। অল্পের জন্য টুর্নামেন্টে প্রথম সেঞ্চুরি হাতছাড়া ত্রিনবাগো ওপেনারের। ৪২ বলে ৮৬ রান করেন সিমন্স। তবে ম্যাচের সর্বোচ্চ স্কোর কলিন মুনরোর। তিনি করেন ৫০ বলে ৯৬। ইনিংসে আটটি ছয় ও ছ’টি বাউন্ডারি মারেন তিনি। এছাড়াও পোলার্ড ১৭ বলে ৪৫ রানের ঝোড়ো ইনিংস খেলেন।

জবাবে গ্লেন ফিলিপস ও গেইল দারুণ শুরু করেন। ৩৯ বছরের গেইল করেন ৩৯ এবং ফিলিপস ৩২ বলে ৬২ রানের ইনিংস খেলেন। কিন্তু পাঁচ উইকেটে ২২৬ রানের বেশি তুলতে পারেনি থালাওয়াস। ফলে ৪১ রানে জয় পায় নাইট রাইডার্স।

মন্তব্য লিখুন :