খাশোগি হত্যার ভয়াবহ বিবরণ দিলেন এরদোগান

সৌদি আরবের সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যার পূর্ণ বিবরণ দিয়েছে তুরস্ক। তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোগান সংবাদ সম্মেলন করে পুরো হত্যার বিবরণ দেন।

তিনি জানান, ‘সৌদি রাজপরিবারের কট্টর সমালোচক ওয়াশিংটন পোস্টের কলামিস্ট খাসোশিকে হত্যা করাটা ছিল সৌদি সরকারের পূর্ব পরিকল্পিত। এজন্যই খাশোগিকে নিজেদের দূতাবাসে ডেকে আনা হয়েছিল।’

‘২ অক্টোবর খাশোগি ইস্তানবুলে সৌদি কনসুলেটে ঢোকার কিছুক্ষণ পরেই তাকে জেরা করেছিলেন সৌদি থেকে আসা গোয়েন্দারা। কথা কাটাকাটির পর তাকে প্রথমে মারধর করা হয়। তারপর গলাটিপে হত্যা করা হয়। এর পরেই শিরশ্ছেদ করা হয় সৌদির সরকারি নিয়ম মেনে। মুণ্ডচ্ছেদের পর সযত্নে শরীরটাকে টুকরো টুকরো করে কাটা হয়।’

‘কিন্তু ভারী শরীরের দেহাংশ রাতারাতি লোপাট করা সম্ভব নয় বুঝে তা নাইট্রিক অ্যাসিডে চোবানো হয়। দেহাংশ অ্যাসিডে কয়েক ঘণ্টা গলানোর পর তা নর্দমায় ফেলে দেওয়া হয়। বেশ কিছু অঙ্গপ্রত্যঙ্গ যা অ্যাসিডে গলেনি প্লাস্টিক কন্টেনারে রেখে অনেক দূরে কোনো ডাস্টবিনে ফেলার জন্য পাচার করে দেওয়া হয়।’

তুর্কি ফরেনসিক বিশেষজ্ঞদের দাবি, দূতাবাসের বাগানের মাটি খুঁড়ে পরীক্ষা করে দেখেছেন, হত্যাকাণ্ডের চিহ্ন লোপাট করতে বাগানের মাটিতেই চাপা দেওয়া হয়েছে অ্যাসিড, রক্তমাখা কাপড় ও কাগজের টুকরো। তার নমুনা নিয়ে যাওয়া হয়েছে পরীক্ষাগারে।

তুরস্ক সরকারের দাবি, সৌদি আরবের রাজপরিবার ও সরকারের নির্দেশেই সরকারি গোয়েন্দারা ঠান্ডা মাথায় খাশোগিকে নির্মমভাবে হত্যা করেছেন।

মন্তব্য লিখুন :