পরকীয়া প্রেম বাঁচাতে স্বামীর কাণ্ড!

ফেসবুকে পরিচয়। পরিচয় একসময় রূপ নেয় প্রণয়ে। এরপর পরিবারের মতে বিয়ে। প্রথমে সব ঠিকঠাক ছিল্ কিন্তু হঠাৎ স্বামী জড়িয়ে পড়েন পরকীয়ায়। শেষে প্রেমিকার সাথে সম্পর্ক টেকাতে স্ত্রীর গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করেন স্বামী।

ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মালদহে। নিহত গৃহবধূর নাম সঙ্গীতা দাস। আর ঘাতক স্বামীর নাম অমরনাথ দাস।

জানা যায়, গত ২৬ অক্টোবর রাতে বাগুইআটির জগৎপুরের আদর্শপল্লির ভাড়াবাড়ি থেকে অগ্নিদগ্ধ সঙ্গীতাকে উদ্ধার করে কলকাতা মেডিক্যালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়। ১০ দিন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে গতকাল মৃত্যু হয় সঙ্গীতার। মৃত্যুর আগে এক ভিডিও বার্তায় সে জানায় তার স্বামীই তাকে হত্যা করেছে।

বিবরণে সে বলে, ‘অমর গায়ে কেরোসিন ঢেলে দেশলাই কাঠি জ্বালিয়ে দেয়। আগুন নেভাতে মাকে ডাকতে গিয়েছিল। অমর, আমার শাশুড়ি এবং তনয়া চট্টোপাধ্যায়ের শাস্তি চাই।’

পুলিশ জানায়, যে তরুণীর সঙ্গে অমরের সম্পর্ক তৈরি হয়েছিল বলে অভিযোগ, তারই নাম তনয়া।

নিহতের বাবা বলেন, যৌতুক নিয়ে আমার মেয়ের স্বামী ও শাশুড়ি খুব অত্যাচার করত। এরপর অমর জড়িয়ে পড়ে পরকীয়া সম্পর্কে। প্রেমিকার প্ররোচণায় আমার মেয়েকে পুড়িয়ে হত্যা করে সে।

এ ঘটনায় পুলিশ নিহতের স্বামী অমরনাথ দাস, শাশুড়ি রিনা দাস এবং প্রেমিকা তনয়া চট্টোপাধ্যায়কে গ্রেপ্তার করেছে।

মন্তব্য লিখুন :