মুক্তি পেলেন আসিয়া বিবি

পাকিস্তানে ধর্ম অবমাননার দায়ে অভিযুক্ত খ্রিষ্টান নারী আসিয়া বিবি অবশেষে কারাগার থেকে মুক্ত হয়েছেন। ইসলাম ধর্মের অবমাননা করায় আট বছর ধরে তিনি সাজা ভোগ করছিলেন। তার মুক্তির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তার আইনজীবী।

পাকিস্তানের বিভিন্ন গণমাধ্যমে জানানো হয়, কারাগার থেকে মুক্তির পর উড়োজাহাজে ওঠেন আসিয়া বিবি। তাঁর গন্তব্য এখনো জানা যায়নি।

২০০৯ সালে আসিয়া বিবির বিরুদ্ধে ধর্ম অবমাননার অভিযোগ আনা হয়। ২০১০ সালের ডিসেম্বরে নিম্ন আদালত আসিয়া বিবিকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দেন। ২০১৫ সালে রায়ের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে আপিল করেন তিনি। পরে গত ৩১ অক্টোবর আসিয়া বিবিকে খালাস দেন সর্বোচ্চ আদালত।

তবে তার খালাসের রায়ের প্রতিবাদে দেশজুড়ে বিক্ষোভের পরিপেক্ষিতে তাকে কারাগারেই থাকতে হয়েছিল। এমনকি ইসলামপন্থি সংগঠনগুলোর চাপের মুখে সরকার তার পাকিস্তান ত্যাগেও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে।

মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.)–কে নিয়ে কটূক্তি করার অভিযোগে দেশটির মধ্যাঞ্চলীয় ইথান ওয়ালি গ্রামের আসিয়া বিবিকে মৃত্যুদণ্ডের শাস্তি দেওয়া হয়। ২০০৯ সালে একই পাত্রের পানি খাওয়া নিয়ে তর্কাতর্কির সময় তিনি ধর্ম অবমাননা করেন বলে দুই মুসলিম নারী তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন।

নিজ বাড়িতে মারধরের শিকার হন আসিয়া বিবি। ব্লাসফেমির দায়ে তাকে মারধর করেন অভিযোগকারীরা। পরে তদন্তের পর আসিয়া বিবিকে গ্রেফতার করে পাকিস্তান পুলিশ। এরপর থেকেই সাজা ভোগ করছিলেন তিনি।

উল্লেখ্য, ১৯৯০ সাল থেকে পাকিস্তানে ধর্ম অবমাননার অভিযোগে অন্তত ৬৫ জনকে হত্যা করা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন :