‘মন্ত্রী আমার জামা কাপড় টেনে ছিঁড়ে দেন এবং ধর্ষণ করেন’

একের পর এক যৌন নির্যাতনের অভিযোগের মুখে পদত্যাগ করা ভারতের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী এম জে আকবরের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ এনেছেন এক মার্কিন সাংবাদিক।

বর্তমানে আমেরিকার ন্যাশনাল পাবলিক রেডিও(এনপিআর)-তে কর্মরত পল্লবী গগৈ নামে ওই সাংবাদিক দ্য ওয়াশিংটন পোস্টকে সাক্ষাৎকারে এ কথা জানান।

পল্লবী বলেন, মাত্র ২২ বছর বয়সে দ্য এশিয়ান এজ এ চাকরি হয় তার। তখন পত্রিকার সম্পাদক ছিলেন আকবর। তিনি চেয়েছিলেন আকবরের কাছ থেকে কাজ শিখে নিতে। তবে আকবর এ সুযোগে বার বার তাকে যৌন হেনস্তা করেন।

তিনি বলেন, একদিন আকবরের কেবিনে পাতা দেখাতে গিয়েছিলেন তিনি। তখন তাকে জোর করে চুমু খেতে চান আকবর। কোনওরকমে সেখান থেকে বেরিয়ে আসলেও চার মাস পর একই ঘটনা ঘটে। তাকে কাজের কথা বলে হোটেল রুমে ডেকে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়। তবে সেবার মন্ত্রীকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিয়ে পার পান তিনি। তবে তৃতীয়বার আর তিনি পার পাননি।

পল্লবী বলেন, জয়পুরের এক যুগলকে খুন করে গাছে ঝুলিয়ে দেওয়া নিয়ে খবর করতে গিয়েছিলেন তাঁরা। সেই সময় ফের তাঁকে হোটেলের ঘরে ডেকে পাঠান আকবর। খবরটি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা দরকার বলে অজুহাত দেন। কিন্তু সেখানে পৌঁছতেই পল্লবীর উপর ঝাঁপিয়ে পড়েন। জামা কাপড় ছিঁড়ে দেন এবং ধর্ষণ করেন।

এই সাংবাদিক আরও বলেন, ওঁর সঙ্গে গায়ের জোরে পেরে উঠিনি। তাই শেষ পর্যন্ত হার মানতে হয় আমাকে। গোটা ঘটনায় এত লজ্জিত বোধ করছিলাম যে পুলিশের কাছে যাওয়ার সাহস পাইনি। কাউকে বলিওনি। বাকিদের দেখে এতদিনে সাহস পেয়েছি। কিন্তু এখন কি আর কেউ আমার কথায় বিশ্বাস করবে? অবশ্য আমিও নিজেকেই দোষ দিই। কেন যে ওঁর হোটেলের ঘরে গিয়েছিলাম?

এদিকে, আইনজীবীর মাধ্যমে অভিযোগ অস্বীকার করেছেন এম জে আকবর। এখনও পর্যন্ত ২০ জনেরও বেশি প্রাক্তন সাংবাদিক আকবরের বিরুদ্ধে নিগ্রহের অভিযোগ তুললো।

মন্তব্য লিখুন :