সৌদি সরকারের নির্দেশেই খাশোগি হত্যা: এরদোয়ান

সৌদি আরবের সাংবাদিক জামাল খাশোগিকে সৌদি সরকারের নির্দেশেই হত্যা করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিযেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোয়ান। তবে তার দাবি, সৌদি রাজা সালমান বিন আবদুল আজিজ এমন নির্দেশ দেননি।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম দ্য ওয়াশিংটন পোস্টে লেখা এক মতামত-এ এসব কথা বলেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট।

সৌদি সরকারের উচ্চপর্যায় থেকেই জামাল খাশোগিকে হত্যার নির্দেশ আসে। তিনি এ সময় পুতুল খেলার নেপথ্য নায়কদের মুখোশ খুলে সামনে হাজির হওয়ার আহ্বান জানান।

এরদোয়ান তার লেখায় সরাসরি কাউকে অভিযুক্ত করেননি। এমনকি সৌদি যুবরাজ মুহাম্মদ বিন সালমানকে নিয়েও কোনো মন্তব্য করেননি।

২ অক্টোবর ইস্তানবুলে সৌদি কনস্যুলেট ভবনে প্রবেশের পর নিখোঁজ হন সৌদির অনুসন্ধানী সাংবাদিক ওয়াশিংটন পোস্টের কলামিস্ট জামাল খাশোগি। ১৯ অক্টোবর মধ্যরাতে প্রথমবারের মতো সাংবাদিক জামাল খাশোগি নিহত হওয়ার কথা স্বীকার করে সৌদি আরব। তবে হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে সৌদি যুবরাজ মুহাম্মদ বিন সালমান কিংবা অন্য কোনও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ নাকচ করে দিয়েছে দেশটি। তবে সৌদি আরবের এমন দাবি মানছে না তুরস্কসহ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়।

অভিযোগ আছে, এই হত্যার নির্দেশ দেন যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান স্বয়ং। যদিও সৌদি আরব এই ঘটনায় যুবরাজের জড়িত থাকার কথা অস্বীকার করেছে।

অপরদিকে, ওয়ালস্ট্রিট জার্নালকে দেয়া সাক্ষাতকারে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রথমবারের মতো স্বীকার করেছেন, সৌদি সিংহাসনের উত্তরসূরি মোহাম্মদ বিন সালমান ভিন্নমতাবলম্বী সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকতে পারেন।

ইস্তানবুল কনস্যুলেটে খাশোগির দেহ টুকরো টুকরো করার পর তা এসিডে গলিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে আশঙ্কা করছেন তুরস্কের একজন শীর্ষ কর্মকর্তা। তুর্কি প্রেসিডেন্টের উপদেষ্টা ইয়াসিন আখতায় বলেছেন এটাই ‘একমাত্র যৌক্তিক উপসংহার’। তুরস্কের দৈনিক সংবাদপত্র হুরিয়াতকে তিনি বলেন, যারা খাশোগিকে হত্যা করেছে তারা কোনও প্রমাণ না রাখতেই তার দেহ এসিডে গলিয়ে দিয়েছে। তুরস্কের কর্তৃপক্ষ খাশোগিকে হত্যার প্রমাণ থাকার দাবি করে আসলেও তার মরদেহ উদ্ধার করতে পারেনি।

উপসম্পাদকীয়তে লেখা নিবন্ধে এরদোয়ান বলেছেন, ন্যাটোভুক্ত দেশের মাটিতে আর কেউ এমন কাজ দ্বিতীয়বার করার চিন্তাও করবে না। এরপরও যদি কেউ এমন সাহস করে তাহলে তাকে ভয়াবহ পরিস্থিতির মুখে পড়তে হবে।

এরদোয়ান বলেন, খাসোগি হত্যাকাণ্ডে নিরাপত্তাবাহিনীর একটি দলের কর্মকাণ্ডের বাইরেও অনেক কিছু রয়েছে।

মন্তব্য লিখুন :