‘মন চুরি’ হয়েছে, মামলা করতে থানায় যুবক!

আজকাল থানায় চুরির নানা ধরনের অভিযোগ আসে। কারো গরু চুরি হয়েছে তো কারো গাড়ি, আবার কারোর বা হারানো গেছে গলার চেইন। এমন অনেক ধরনের চুরির অভিযোগে থানায় মামলার কমতি নেই। তবে বিশ্ব ইতিহাসে মন চুরির কোনো মামলা হয়েছে বলে কেউ কখনো শুনেছেন?

কথাটা শুনে অবাক হচ্ছেন নিশ্চয়ই। সবাই ভাবছেন এমনও মামলা হয় নাকি। মামলা না হলেও এমন অভিযোগেই পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছেন এক যুবক। যদিও আইনে না থাকায় শেষ অবধি তিনি মামলাটি করতে পারেননি।

ঘটনাটি ঘটেছে ভারতে। ‘মন চুরি’র অভিযোগ জমা পড়ে নাগপুরের একটি থানায়। অভিযোগকারীর বয়স ২২ এর মতো। সম্প্রতি এক অনুষ্ঠানে এই ঘটনাটির কথা উল্লেখ করেন নাগপুরের পুলিশ কমিশনার ভূষণকুমার উপাধ্যায়।

তিনি জানান, দিন কয়েক আগে তাড়াহুড়ো করে এক যুবক নাগপুর থানায় আসেন এবং দায়িত্বরত পুলিশকে বলেন, আমার একটা গুরুত্বপূর্ণ বস্তু চুরি হয়ে গিয়েছে! আপনাদের খুঁজেই দিতে হবে।

কী হারিয়েছে, কোথা থেকে হারিয়েছে প্রশ্ন করা হয় ওই যুবককে৷ উত্তরে তিনি বলেন,  আমার মন চুরি হয়ে গিয়েছে! একটি মেয়ে আমার মন চুরি করেছে। ওই মেয়েটিকে খুঁজে আনুন। আর আমার মনকে আমার কাছে ফিরিয়ে দিতেই হবে আপনাদের!

জবাবে পুলিশ বলেন, চুরি যাওয়া সামগ্রী আমরা উদ্ধার করে দিতে পারি, কিন্তু চুরি যাওয়া মন আমরা কীভাবে ফিরিয়ে দেব! তবে যুবক ছিল নাছোরবান্দা, সে মামলা না করে যাবেই না।

এরপর পুলিশ সদস্যরা সাহায্য নেয় থানার দারোগার। সে বিষয়টি যুবককে বুঝিয়ে বলে। তবে তাতেও কাজ হয়নি। এরপর ফোন দেয়া হয় নাগপুরের পুলিশ কমিশনার ভূষণকুমার উপাধ্যায়কে।

সে ওই যুবককে বলে, হৃদয়হরণ সংক্রান্ত কোনো আইন ভারতীয় সংবিধানে বিধিবদ্ধ নেই। ফলে তাঁকে সাহায্য করতে পারবেন না তাঁরা। এরপর অনেক বুঝিয়ে ওই যুবককে বাড়ি পাঠানো হয়।

মন্তব্য লিখুন :