গরীব হয়ে যাচ্ছেন ইমরান খান!

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নেয়া ইমরান খান দিন দিন গরীব হয়ে যাচ্ছেন! ২০১৫ সালে যেখানে ইমরানের নগদ অর্থ ছিল ৩ কোটি ৫৬ লাখ পাকিস্তানী রুপি সেখানে বর্তমানে ২০১৭ সালে তার কাছে ছিল মাত্র ৪৭ লাখ রুপি। ধারণা করা হচ্ছে বর্তমানে ইমরানের কাছে ২০ লাখের কম রুপিই আছে।

ডনের দাবি, প্রাক্তন ক্রিকেট দলের ক্যাপ্টেন ইমরান খানের ২০১৫ সালে পাকিস্তানি টাকার মুল্য অনুযায়ী ৩.৫৬ কোটি টাকা ছিল। ২০১৬ সালে সেটি কমে ১.২৯ কোটি হয়ে যায়। ২০১৭ সালে এই সম্পত্তি ৪৭ লক্ষ টাকায় নেমে গিয়েছে।

২০১৫ সালে ইমরান খানের আয়ে ১০ লক্ষ টাকার একটু বেশি হয়েছে। এই বৃদ্ধি ইসলামাবাদে তাঁর একটি আবাসন বিক্রি করে হয় বলে জানা গিয়েছে। তাছাড়া বিদেশ থেকে তিনি ৯৮ লক্ষ টাকা পেয়েছেন। সেখানেই ২০১৬ সালে তার আয় কমে ১.২৯ রয়ে যায়। এই সময়ে ইমরানের কাছে বিদেশ থেকে ৭৪ লক্ষ টাকা আসে। ২০১৭ সালে সম্পদ আরও কমে হয় ৪৭ লাখ রুপি। এখন তার কাছে ২০ লাখ বা তারও কম অর্থ আছে।

এদিকে ইমরানের অর্থ-সম্পদ কমলেও বিরোধীদের বাড়ছে। তাঁর বিরোধী নেতা শাহবাজ শরিফের শুদ্ধ আয়ে ক্রমশ বৃদ্ধি হয়েছে। ২০১৫ সালে তার আয় ৭৬ লক্ষ পাকিস্তানী টাকা ছিল যা বেরে ২০১৭ সালে এক কোটি টাকা পার করে গিয়েছে।

২০১৫ সালে প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি আসিফ আলি জরদারির মুল আয় ছিল ১০.৫ কোটি। ২০১৬ সালে এই আয় বেড়ে ১১.৪ কোটি এবং ২০১৭ সালে ১৩.৪ কোটি হয়েছে। এছাড়া তার কাছে ৭,৭৪৮ একর জমি রয়েছে।

মন্তব্য লিখুন :