মমতার তৃণমূলে ভাঙন, নেতারা যোগ দিচ্ছেন বিজেপিতে

ভাঙন ধরেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের ক্ষমতাসীন দল তৃণমূল কংগ্রেসে। মমতা বন্দোপাধ্যয়ের দল ছেড়ে একে একে নেতারা যোগ দিচ্ছেন নরেন্দ্র মোদির বিজেপিতে। তবে এ নিয়ে মাথাব্যথা নেই মমতার।

বৃহস্পতিবার (১৪ মার্চ) নয়াদিল্লিতে বিজেপির সদর দপ্তরে গেরুয়া শিবিরে যোগদান করেন তৃণমূলের প্রভাবশালী নেতা অর্জুন সিংহ।

জানা যায়, অর্জুন সিংহের ইচ্ছা ছিল ব্যারাকপুর থেকে লোকসভা ভোটে প্রার্থী হওয়ার। কিন্তু তাকে বাদ দিয়ে দলীয় প্রধান মমতা বন্দোপাধ্যয় বর্তমান সাংসদ দীনেশ ত্রিবেদী প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করেন। এরপরই গতকাল দিল্লী চলে যান অর্জুন। পরে আজ সকালে বিজেপিতে যোগ দেন।

এর আগে গত মঙ্গলবার তৃণমূলের প্রার্থী ঘোষণার দিনই বিজেপিতে যোগদান করলেন বহিষ্কৃত তৃণমূল সাংসদ অধ্যাপক অনুপম হাজরা। তাঁর সঙ্গে গেরুয়া শিবিরে নাম লেখান বাগদার কংগ্রেস বিধায়ক দুলাল চন্দ্র বর এবং হবিবপুরের সিপিএম বিধায়ক খগেন মুর্মু।

এর আগে বিজেপিতে নাম লিখিয়েছেন বিষ্ণুপুরের সাংসদ সৌমিত্র খাঁ, শাসকদল ঘনিষ্ঠ প্রাক্তন আইপিএস ভারতী ঘোষ এবং তৃণমূল ছাত্র পরিষদের প্রাক্তন সভাপতি শঙ্কুদেব পণ্ডা। ধারণা করা হচ্ছে তৃণমূলের টিকিট পাননি এমন আরও বেশ কয়েকজন নেতা বিজেপিতে যোগদান করতে পারেন। তাদের মধ্যে কয়েকজন প্রভাবশালী নেতাও রয়েছে।

এ প্রসঙ্গে মমতা বলেন, ‘দু’একজনের প্রার্থী হওয়ার লোভ আছে। যারা যেতে চায়, তারা গেলে তো বেঁচে যাই। কে গেল, ওরা কাকে নিল তাতে আমার কিছু যায় আসে না। আমি অনেককে বলে দিয়েছি, যা। মুক্ত করে দিচ্ছি। টাকা নিয়ে যারা দল ভাঙায় তাদের নিন্দা করি।

এদিকে, তৃণমূল থেকে একের পর এক নেতা বিজেপিতে যোগ দেয়ায় বেশ খুশি কংগ্রেস। কংগ্রেসের অধীররঞ্জন চৌধুরী বলেন, যে রাজনৈতিক নোংরা খেলায় দিদি কংগ্রেস দল ভাঙলো, সেই একই খেলায় দিদির দল ভাঙছে বিজেপি। আমি অনেক আগে বলেছিলাম যে দিদিকেও একদিন একই খেলার শিকার হতে হবে। দিদি আপনার রাজনৈতিক পাপ আপনাকে ছাড়বে না।

মন্তব্য লিখুন :