অস্ট্রেলিয়ায় ক্ষমতাসীনদের অবিশ্বাস্য জয়

অস্ট্রেলিয়ার ৪৬তম সাধারণ নির্বাচনে অবিশ্বাস্যভাবে জয় পেয়েছে ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ জোট। নির্বাচনে পুনরায় নিজ দলকে বিজয়ী করায় দেশবাসীর প্রতি ধন্যবাদ ও অভিনন্দন জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন।

এ দিকে রবিবার (১৯ মে) সমর্থকদের উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে প্রধানমন্ত্রী মরিসন বলেন, আমি সব সময় অলৌকিক ঘটনায় বিশ্বাস করি। আর আজ আমাদের সঙ্গে তাই হলো। এ দিন নির্বাচনের আংশিক ফলাফল ঘোষণা শেষে লিবারেল-ন্যাশনাল জোট সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেতে যাচ্ছে গণমাধ্যমে এমন ইঙ্গিত পাওয়া মাত্রই তিনি এই মন্তব্য করেন।

অপর দিকে শান্তিপূর্ণ এই নির্বাচনের ফলাফল মেনে নিয়ে এরই মধ্যে পদত্যাগ করেছেন বিরোধী দল লেবার পার্টির নেতা বিল শর্টেন। এর আগে যদিও বুথ ফেরত জরিপের তথ্যে দেখা গিয়েছিল যে, গত ছয় বছরের মধ্যে এবারই প্রথম লেবার পার্টি সামান্য ব্যবধানে জয় পেতে যাচ্ছে।

যদিও এ দিন ভোট গণনা শুরু হওয়ার পর পরিস্থিতি কিছুটা বদলাতে শুরু করে। তবে চূড়ান্ত ফলাফল পেতে আরও কয়েক ঘণ্টা অপেক্ষা করতে হবে সকলকে। নির্বাচন কমিশনের দাবী, এখন পর্যন্ত ৭০ শতাংশের মতো ভোট গণনা সম্পন্ন হয়েছে। যেখানে ক্ষমতাসীন নেতা স্কট মরিসনের জোট ৭৪টি আসন নিয়ে এগিয়ে আছে। অপর দিকে বিরোধী জোটের দখলে আছে মাত্র ৬৬টি আসন। পার্লামেন্টের নিম্ন কক্ষে মোট ১৫০ আসনে মধ্যে প্রতিটি দলকে অবশ্যই তাদের সংখ্যা গরিষ্ঠতার জন্য পেতে হবে কমপক্ষে ৭৬টি আসন।

ওশেনিয়া অঞ্চলে অবস্থিত এই দেশটিতে প্রতি তিন বছর পরপর সরকার পুনরায় গঠনের জন্য সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। যদিও ২০০৭ সালের পর থেকে এখন পর্যন্ত কোনো প্রধানমন্ত্রীই নিজের সম্পূর্ণ মেয়াদে ক্ষমতায় থাকতে পারেনি। যে কারণে নির্বাচনে জয় লাভ করলেও বিজয়ীদের পূর্ণ মেয়াদে ক্ষমতায় টিকে থাকাটাই হচ্ছে অনেক বড় চ্যালেঞ্জ।

মন্তব্য লিখুন :