মুসলিমদের ৫টি নামাজের স্থান বন্ধ করে দিল মিয়ানমার

উগ্র জাতীয়তাবাদী একটি পক্ষের বিক্ষোভের মুখে মুসলমানদের নামাজের জন্য ব্যবহৃত পাঁচটি স্থান বন্ধ করে দিয়েছে মিয়ানমার কর্তৃপক্ষ।

দেশটির প্রাক্তন রাজধানী ইয়াংগুনের দক্ষিণ দাগন টাউনশিপে মুসলিমদের নামাজ পড়ার জন্য কোনও মসজিদ নেই। তবে রমজান মাসে সেখানকার ইসলাম ধর্মাবলম্বীরা দুটি বাড়ি ও তিনটি পোশাক কারখানায় নামাজ পড়ে আসছিলেন। কিন্তু উগ্র জাতীয়তাবাদীদের বিক্ষোভের মুখে এসব স্থানে নামাজ পড়া বন্ধ করে দেয় কর্তৃপক্ষ। 

মিয়ানমার টাইমস এ সংক্রান্ত খবর প্রকাশ করেছে। খবরে বলা হয়, ইফতার শেষে যখন এই পাঁচ স্থানে মুসলিমরা নামাজ পড়ছিলেন তখন এসব স্থানে বিক্ষোভ করে শতাধিক বিক্ষোভকারী। পরে মুসল্লিদের টাউনশিপের অফিসে নিয়ে যাওয়া হয় এবং তারা এই পাঁচ স্থানে আর নামাজ পড়বেন না বলে মুচলেকা নেয়া হয়।

জানা গেছে, দক্ষিণ দাগনে নামাজ পড়ার জন্য কোনও মসজিদ নেই। তাই রমজান মাসে নামাজ পড়ার স্থান চেয়ে আঞ্চলিক সরকারের কাছে আবেদন জানায় মুসলিমরা। পরে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ এই পাঁচটি স্থানে মুসলিমদের ৫ মে থেকে ৫ জুন পর্যন্ত নামাজ পড়ার অনুমতি দেয়।

তবে বিক্ষোভকারীদের চাপের মুখে এসব স্থানে নামাজ পড়া বন্ধ করে দিয়েছে স্থানীয়রা। বিক্ষোভকারীদের অভিযোগ, মুসলিমরা বিনা অনুমতিতে এসব স্থানকে মসজিদ হিসেবে ব্যবহার করছে। এমন পরিস্থিতিতে ধর্মীয় সংঘাতের আশঙ্কায় ওই স্থানগুলোতে নামাজ পড়া বন্ধ করে দেয় কর্তৃপক্ষ।


মন্তব্য লিখুন :