পশ্চিমবঙ্গ মমতার দখলে, তবে ম্যাজিক দেখাল বিজেপি

ভারতের লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশ পেতে শুরু করেছে। ভারতীয় সময় সকাল আটটায় ভোট গণনা শুরু হয়। গণমাধ্যমে প্রকাশিত ফলাফল অনুযায়ী এগিয়ে আছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট। ৫৪৩টি আসনের মধ্যে এনডিএ পেয়েছে ৩২১টি আর কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন ইউপিএ জোট ১১০টি আর অন্যান্য বিরোধী দল এগিয়ে পেয়েছে ১১১টি আসন।
তবে সারা ভারতের মতো পশ্চিমবঙ্গেও ম্যাজিক দেখিয়েছে নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট। বর্তমান মূখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির তৃণমূল কংগ্রেস জয়ের পথে হাঁটলেও আসন কমেছে অনেক।
স্থানীয় গণমাধ্যমে প্রকাশিত ফলাফল অনুযায়ী, পশ্চিমবঙ্গের ৪২টি আসনের মধ্যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তৃণমূল কংগ্রেস পেয়েছে ২৬টি, বিজেপি পেয়েছে ১৫টি আর কংগ্রেস পেয়েছে ১টি আসন। ২০১১ সালে ৩৪ বছরের বাম শাসনের অবসান ঘটিয়ে ক্ষমতায় আসেন মমতা। ক্ষমতায় আসার পর প্রথম ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গের ৪২ আসনের মধ্যে মমতা পান ৩৪টি আসন। কংগ্রেস তাদের থলিতে ভরে ৪টি আসন। আর বামফ্রন্ট এবং বিজেপি পায় ২টি করে আসন।
পশ্চিমবঙ্গে গতবার যেখানে বিজেপি মাত্র দুটি আসন পেয়েছিল। সেখানে এবার ১৩টি আসন বেশি পেয়েছে তারা। অন্যদিকে গণমাধ্যমে প্রকাশিত ফলাফলে মমতার তৃণমূলের জনপ্রিয়তা কমেছে সেটিও লক্ষণীয়। গতবারের চেয়ে এবার তৃণমূল ৮টি আসন কম পেয়েছে। অন্যদিকে কংগ্রেস গতবার ৪টি আসন পেলেও এবার তারা পশ্চিমবঙ্গে পেয়েছে মাত্র ১টি আসন পেয়েছে।
এদিকে ভারতীয় পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ লোকসভার ৫৪৩টি আসনের মধ্যে ৫৪২টিতে নির্বাচন হয়েছে এবার। ১১ এপ্রিল শুরু হয়ে গত ১৯ মে শেষ হয় ভারতে পার্লামেন্ট নির্বাচনের ভোটগ্রহণ। ৯০ কোটি ভোটারের জন্য নয় লাখ কেন্দ্রে মোট সাত পর্বে এই ভোটগ্রহণ চলে।
সরকার গঠন করতে একটি দলকে পেতে হবে ২৭২টি আসন। সেই হিসেবে এটা স্পষ্ট যে, আবারও সরকার গঠন করতে যাচ্ছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট। যদিও এর আগেই বুথ ফেরত জরিপগুলো প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বাধীন জোটের বিজয়ের আভাস মিলেছিল।
ভারতের গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, নির্বাচনে বিপুল ব্যবধানে আবারও জয় পেতে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট। বেসরকারি ফলাফলে দেখা গেছে ভারতের ৫৪২টি আসনের মধ্যে ৩২০টিরও বেশি আসন পেয়েছে এনডিএ জোট। কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন ইউপিএ জোট পেয়েছে ১০৬টি আর অন্যান্য বিরোধী দল পেয়েছে ১১০টি আসন। অন্যদিকে পশ্চিমবঙ্গেও এবার ম্যাজিক দেখালো বিজেপি। 
ভারতে সাধারণ নির্বাচনে ভোটগ্রহণের পর সঙ্গে সঙ্গে গণনা হয় না। ব্যালট বাক্স কিংবা ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনগুলো (ইভিএম) কঠোর নিরাপত্তায় সংরক্ষিত থাকে বিভিন্ন রাজ্যের ‘স্ট্রংরুমে’। নির্ধারিত সূচি অনুযায়ী, বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় সকাল ৮টায় কঠোর নিরাপত্তার মধ্যে শুরু হয় সেই ভোট গণনা।
এর আগে ২০১৪ সালে ভারতের লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছিল। তারা পায় ২৮২ আসন। আর বিজেপি জোট পায় ৩৩৪টি আসন। অপর দিকে কংগ্রেস পেয়েছিল শুধু ৪৪টি আসন। জোটে তারা পায় ৬০টি আসন। অন্যান্যরা পায় ১৪৯টি আসন।

মন্তব্য লিখুন :