ট্যুইটে মমতার ‘মানি না’

প্রথমে জানা গিয়েছিল তিনি সাংবাদিক সম্মেলন করবেন। বৃহস্পতিবার সারা দিন সাংবাদিকেরা অপেক্ষায় ছিলেন। বিকেলে তিনি জানিয়ে দেন কোনও সাংবাদিক সম্মেলন নয়। লোকসভা নির্বাচনের ফল ঘোষণার পরে এখনও পর্যন্ত মুখই দেখাননি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফল প্রকাশের দিন বৃহস্পতিবার একটি ট্যুইট করে বুঝিয়ে দেন নিজের বক্তব্য।

বৃহস্পতিবার লেখেন, ‘সব হারই পরাজয় নয়।’ আজ শুক্রবার লিখলেন ‘মানি না’ নামে কবিতা। শুধু বাংলায় নয়, ইংরেজি ও হিন্দিতে তর্জমাও পোস্ট করেছেন।  কবিতার মধ্য দিয়ে বোঝাতে চেয়েছেন তিনি সর্ব ধর্ম সমন্বয় চান। তিনি সাধারণত কবিতা লেখেন বাংলায়। তবে এবার তিন ভাষায় পোস্ট সম্ভবত নিজের কাব্য-বার্তা জাতীয় স্তরে পৌঁছে দিতেই।

গত কয়েকদিন দিন ধরে একাধিক ঘটনার প্রতিবাদে গর্জে উঠছে মমতার কলম। বিদ্যাসাগরের মূর্তির প্রতিবাদে লিখেছিলেন কবিতা। এবার ফলপ্রকাশের পরের দিন, হিন্দুত্ববাদ ও সাম্প্রদায়িকতার প্রতি ঘৃণা ছুড়ে দিয়ে মমতা লিখলেন, ‘মানি না’।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কবিসত্বার পরিচয় আগেও পাওয়া গিয়েছে। তবে এবারেরটা যে নিছক কবিতা নয়, সেটা স্পষ্ট। আজ এই কবিতা তিনটি ভাষায় ট্যুইট করেছেন তৃণমূলনেত্রী- বাংলা, হিন্দি ও ইংরেজি। শিরোনাম যথাক্রমে- মানি না, ‌মায় নেহি মানতি ও আই ডো নট এগ্রি।

কবিতার শুরুতেই লেখা আছে, ‘সাম্প্রদায়িকতার রঙ আমি বিশ্বাস করি না।’ যে মমতা বারবার বিজেপির বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িকতার আভিযোগ তুলে এসেছেন, ফলাফলের পরের দিন এই কবিতার মাধ্যমে যে তিনি গেরুয়া শিবিরকে বার্তা দিতে চেয়েছেন তা স্পষ্ট।

লোকসভার ফলাফলে বাংলায় গেরুয়া শিবির বিধ্বংসী জয় পেয়েছে।  মমতার আশা ছিল, ৪২-এ মিলবে ৪২, সেখানে আসন কম হয়েছে ২০। ২২টি আসন পেয়েছে তৃণমূল, আর বিজেপি ১৮টি। স্বাভাবিকভাবেই এই অপ্রত্যাশিত ফল তৃণমূল শিবির তথা মমতার কাছে বড় ধাক্কা।

যে বিজেপিকে ভোট প্রচারে গিয়ে উদয়াস্ত আক্রমণ করে গিয়েছেন, সেই বিজেপি এভাবেই রাজ্যে এন্ট্রি নিচ্ছে, তা মেনে নিতে পারছেন না পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী। সেইসঙ্গে বিজেপি নেতারা বারবার দাবি করছেন, একগুচ্ছ বিধায়ক নাকি দল পাল্টে চলে যাবে বিজেপিতে। এই পরিস্থিতিতে একেবারে শুনশান হরিশ মুখার্জি স্ট্রিট। এরই মধ্যে পোস্ট হল কবিতা।

বার্তা যে শুধু রাজ্য বিজেপিকে নয়, জাতীয় স্তরে পৌঁছে দিতে চেয়েছেন তাঁর বক্তব্য, তা হিন্দি ও ইংরেজিতে কবিতা পোস্ট করাতে দেখেই বোঝা যাচ্ছে।

কবিতায় মমতা লিখেছেন, ‘ধর্ম বিক্রি যাদের তাস, ধর্ম পাহাড়ে টাকার বাস?’ আর ধর্মের নামে ভোট চাওয়ার অভিযোগ বিজেপির বিরুদ্ধে আগে করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। বারবার যিনি জোর গলায় বলেন যে, তিনি সব ধর্মে বিশ্বাস করেন, সেই মমতা এই কবিতার মাঝে লিখেছেন, ‘বিশ্বাস করি মানবিকতার আলোকে আলোকিত ধর্ম।’

মুখে কোনও প্রতিক্রিয়া না দিলেও ‘মানি না’ কবিতাতেই মমতা বুঝিয়ে দিলেন গেরুয়া শিবিরের এই জয় তিনি বরদাস্ত করবেন না।

মন্তব্য লিখুন :