রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনে সহযোগিতা করছে না বাংলাদেশ: মিয়ানমার

রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনে বাংলাদেশ সহযোগিতা করছে না বলে অভিযোগ করেছে মিয়ানমার। জাপানের সম্প্রচার মাধ্যম নিকেই আয়োজিত দ্য ফিউচার অব এশিয়া সম্মেলনে  শুক্রবার এমন অভিযোগ করেন মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সিলর অং সান সু চির দপ্তরের মন্ত্রী কিয়াও তিন্ত সোয়ে। খবর নিক্কেই এশিয়ান রিভিউর।

টোকিওতে আয়োজিত সম্মেলনে তিনি বলেন, ২০১৭ সালে দু'দেশের মধ্যে স্বাক্ষরিত চুক্তিকে সম্মান জানায়নি বাংলাদেশ। রাখাইন রাজ্যে জাতিগত সহিংসতার কারণে রোহিঙ্গা ও অন্যান্য সংখ্যালঘু গোষ্ঠীর যেসব মানুষ পালিয়ে গেছে, এ চুক্তি অনুযায়ী তাদের মিয়ানমারে ফেরার সুযোগ ছিল। ২০১৮ সালের জানুয়ারি থেকে প্রত্যাবাসন শুরুর কথা থাকলেও আজ পর্যন্ত সরকারি প্রক্রিয়ায় কেউই ফেরত আসেনি।

এ সময় তিনি আরও দাবি করেন, মিয়ানমারের রাখাইন থেকে অন্যত্র পালিয়ে যাওয়া উদ্বাস্তুদের সবাকেই আবাসন কার্ড দেওয়া হচ্ছে। বাংলাদেশ থেকে প্রায় ২০০ রোহিঙ্গা এবং হিন্দু ধর্মাবলম্বী ২০ জন স্বেচ্ছায় মিয়ানমারে ফিরে এসেছে। তারা কেউই আনুষ্ঠানিক প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে আসেনি।

রোহিঙ্গাদের নিরাপদ ও স্বেচ্ছায় প্রত্যাবাসনের নিশ্চয়তায় ২০১৭ সালের ওই প্রত্যাবাসন চুক্তি বাস্তবায়ন বিলম্বিত হচ্ছে। মানবাধিকার সংস্থাগুলো বরাবরই এ জন্য মিয়ানমারের নিষ্ফ্ক্রিয়তাকে দায়ী করে আসছে।

সংস্থাগুলোর অভিযোগ, আইনি নিরাপত্তা ও নাগরিকত্ব ছাড়া মিয়ানমারে ফিরলে রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতন থামবে না। জাতিসংঘও তাদের নাগরিকত্ব ফিরিয়ে দেওয়াসহ নিরাপদ, মর্যাদাপূর্ণ ও স্বেচ্ছায় দেশে ফেরার ওপর জোর দিয়ে আসছে। রোহিঙ্গারাও মিয়ানমারে ফেরার বিষয়টি এখনও নিরাপদ মনে করেছে না।

মন্তব্য লিখুন :