গরুর সাথে বাঘ-সিংহ পাচার হচ্ছে বাংলাদেশ সীমান্ত দিয়ে

বাংলাদেশ সীমান্ত বাঘ সিংহ পাচারের নতুন করিডর হয়ে উঠেছে বলে ওয়াইল্ড লাইফ ক্রাইম কন্ট্রোল ব্যুরোর তদন্তে উঠে আসছে। বাংলাদেশ সীমান্ত দিয়ে পাচার হয়ে আসা এসব বন্যপ্রণী ঢুকছে ভারতসহ বিভিন্ন দেশে।

তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিদেশ থেকে এই সমস্ত পশু পাচার করে আনা হচ্ছে বাংলাদেশে। সেখান থেকে সীমান্ত পেরিয়ে তা কখনও চলে যাচ্ছে দক্ষিণ ভারতে কখনও যাচ্ছে পশ্চিম ভারতে।

তারা বলছে, ভারতের এই সমস্ত অঞ্চলে বড় বড় ব্যবসায়ীদের বসবাস। এরা অনেকেই বাঘ সিংহের মতো বড় প্রাণী নিজেদের বাড়িতে রেখে নিজেদের আভিজাত্য, প্রতিপত্তি দেখানোর চেষ্টা করছে। সেটাকেই টার্গেট করেছে চোরা পাচারকারীরা। যেমন সিংহের মতো পশুর শাবক তাদের ৫০ লক্ষ থেকে এক কোটি টাকায় বিক্রির চেষ্টা করা হচ্ছে।

গতকাল শনিবার বেলঘরিয়া এক্সপ্রেসওয়ে থেকে উদ্ধার হয় সিংহ শাবক ও তিনটি হোয়াইট হেডেড লেঙ্গুর। গ্রেপ্তার করা হয় আন্তর্জাতিক পাচার চক্রের দুই পাণ্ডা-সহ তিনজনকে। সিংহ শাবকটিকে যেমন এক কোটি টাকায় বিক্রি করা হত। তার আগেই ধরা পড়ে যায় পাচারকারীরা।

ওয়াইল্ড লাইফ ক্রাইম কন্ট্রোল ব্যুরো ও ওয়াইল্ড লাইফ ক্রাইম কন্ট্রোল সেলের কাছে আগে থেকেই খবর ছিল পাচারের। পরে তাদের অভিযানে ধরা পড়ে পাচারে যুক্তরা। দীর্ঘক্ষণ ব্যাগবন্ধ থাকায় অসু্স্থ হয়ে পড়েছিল পশুগুলি। এখন তাদের স্থান হয়েছে আলিপুর জু হাসপাতালে

এতদিন বাংলাদেশ সীমান্ত দিয়ে গরুপাচার ছিল রোজগার ঘটনা। তবে এ তথ্য এখন মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশ ও ভারতের জন্য।

মন্তব্য লিখুন :