বাঁধ খুলে দিয়েছে ভারত, পাকিস্তানে ভয়াবহ বন্যা

পাকিস্তানের পানি এবং বিদ্যুৎ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান মোজাম্মিল হোসেনের অভিযোগ, ভারত ঘোষণা ছাড়াই একটি বাঁধ খুলে দেওয়ায় কারণে পাকিস্তানের বিস্তীর্ণ এলাকায় বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।

মোজাম্মিল হোসেনের দাবি, ভারত এখন পানিকে অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করে ফিফথ জেনারেশনের যুদ্ধ শুরু করেছে। শুধু তাই নয়, ভারত পাকিস্তানকে কূটনৈতিকভাবে একঘরে করার চেষ্টা করছে এবং অর্থনীতিকেও চেপে ধরতে চাইছে।

পাকিস্তানের বিরুদ্ধে সর্বমুখী যুদ্ধ শুরু করেছে ভারত এমন অভিযোগ তুলে তিনি বলেন, স্বাভাবিকভাবেই পানি অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ প্রভাব রাখে। এবং কৃষি ও সেচের ক্ষেত্রে জলের ব্যাপক ভূমিকা রয়েছে। আর সেজন্যেই ভার‍ত এই কৌশলি সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে মত তার।

পাকিস্তানের পানি বিষয়ক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ভারত হঠাৎ করে বাঁধ খুলে দেওয়ায় সুতলেজ নদীতে পানি প্রবাহ হঠাত করে বেড়ে গিয়েছে। আর যার ফলে পাকিস্তানজুড়ে ভয়াবহ বন্যা পরিস্থিতি দেখা দিয়েছে। এর মাধ্যমে পাকিস্তানের সঙ্গে স্বাক্ষরিত দীর্ঘদিনের চুক্তি লঙ্ঘন করেছে ভারত।

মঙ্গলবার মুম্বাইয়ে এক অনুষ্ঠানে ভারতের কেন্দ্রীয় জলশক্তি মন্ত্রী গজেন্দ্র সিং বলেন, আগামিদিনে নদীর পানি পাকিস্তানে যাওয়া কিভাবে বন্ধ করা যায়, তা নিয়ে কাজ চলছে। আপাতত এটি আমাদের টপ প্রায়োরিটি। পাকিস্তানকে পানি বন্ধ করার কথা বললেও আমি সিন্ধু চুক্তি বাতিলের কথা বলছি না।

সিন্ধু চুক্তি না বাতিল করে কিভাবে নদীর পানি যাওয়া বন্ধ করা সম্ভব? মন্ত্রীর ব্যখ্যা, বর্তমানে নদীর অতিরিক্ত পানি পাকিস্তানে যায়। অতিরিক্ত পানি যাতে আর না যায়, সে বিষয়ে কাজ চলছে। ক্যাচমেন্ট এরিয়ার বাইরেও জলাধার এবং নদী আছে। আমরা নদীগর্ভে পরিবর্তন আনব। যার জেরে অতিরিক্ত পানি রবি নদীতে গিয়ে পড়বে।

মন্তব্য লিখুন :