পাক-ভারত সীমান্তে ব্যাপক গোলাগুলি, ভারতীয় সেনা নিহত

কাশ্মীর সীমান্তে আবারও ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে এক ভারতীয় জওয়ান নিহত হয়েছে।

শুক্রবার সকালে জম্মু কাশ্মীরের রাজৌরি জেলার সুন্দরবেনি সেক্টরে এ ঘটনা ঘটে। গতকাল বিকাল থেকেই ওই সেক্টরে দু’পক্ষের মধ্যে গোলাগুলি চলছিল।

গত কয়েকদিন ধরেই উত্তপ্ত রয়েছে কাশ্মীর। ভারত ও পাকিস্তানের সেনাদের মধ্যে গুলির লড়াইয়ে প্রতিদিনই ঘটছে হতাহতের ঘটনা।

বৃহস্পতিবার বিকাল থেকে জম্মু-কাশ্মীরের রাজৌরি জেলার সুন্দারবেনি সেক্টরে আবারও শুরু হয় গুলির লড়াই। দু’পক্ষই রাতভর চালিয়ে যায় লড়াই। এরপর ভোরের দিকে লড়াই থামে।

তবে শুক্রবার সকাল থেকে আবার শুরু হয় গোলাগুলি। এতে এক ভারতীয় সেনা জওয়ান গুরুতর আহত হন। পরে হাসপাতালে মারা যান তিনি।

ভারতের অভিযোগ, কোনও প্ররোচনা ছাড়াই এলওসি’র ওপার থেকে হেভি শেলিং করতে শুরু করে পাকিস্তান সেনাবাহিনী। এরপর পাল্টা পাকিস্তান সেনাকে জবাব দেয় ভারতও। তবে পাকিস্তান বলছে হামলা আগে ভারত চালিয়েছে।

এদিকে, মঙ্গল ও বুধবারও দুই দেশের সেনা তুমুল সংঘর্ষে জড়ায়। পরে পাকিস্তান সেনাবাহিনী দাবি করে সংঘর্ষে ভারতের এক সেনা কর্মকর্তাসহ ছয় জওয়ান নিহত হয়। তবে ভারতীয় মিডিয়া একজনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করে।

এরপর ভারতীয় সেমনাবাহিনীর পক্ষ থেকে বলা হয় সংঘর্ষে পাকিস্তানের বেশ কয়েকজন সেনা নিহত হয়েছে। তাদের দাবি ভারতের সাধারণ মানুষের উপর হামলা চালিয়েছে পাকিস্তান।

এদিকে, সীমান্তে উত্তেজনা কমার বালাই নেই৷ উপরন্তু তা আগের থেকে বহুগুণ বেড়ে গিয়েছে। তবে উদ্বেগের বিষয় হল, সংঘর্ষবিরতির ক্ষেত্রে দুই দেশ এমন সব অস্ত্র ব্যবহার করছে যা সাধারণত যুদ্ধে ব্যবহার করা হয়।

মন্তব্য লিখুন :