সব রেকর্ড ভাঙছে পেঁয়াজ

হু হু করে বেড়েই চলছে পেঁয়াজের দাম। নিত্যপ্রয়োজনীয় এ পণ্যটির দাম ছাড়িয়েছে অতীতের সব রেকর্ড। ২০০ পার করেও যেন থামার কোনো লক্ষণ নেই। দিনে দিনে আরও বৃদ্ধি পাচ্ছে দাম। এমন অবস্থায় পেঁয়াজ সাধারণ ক্রেতার নাগালের বাইরে চলে গেছে।

বর্তমানে বাজারে প্রতিকেজি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ২১০ থেকে ২২০ টাকা। গত এক সপ্তাহ আগে প্রতিকেজি পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ১২০ টাকা। সে হিসাবে শুধু এক সপ্তাহের ব্যবধানে রান্নায় অতি প্রয়োজনীয় এ মসলা জাতীয় পণ্যটির প্রতিকেজি দাম বেড়েছে ৯৫ টাকা।

শুক্রবার (১৫ নভেম্বর) রাজধানীর খিলগাঁও, মতিঝিল টিঅ্যান্ডটি, ফকিরাপুল কাঁচাবাজার, সেগুনবাগিচা কাঁচাবাজার, রামপুরা কাঁচাবাজার, খিলগাঁও রেলগেট বাজার কাঁচাবাজার ঘুরে এসব চিত্র দেখা গেছে।

বর্তমানে এসব বাজারে প্রতিকেজি দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ২০০ থেকে ২১৫ টাকা কেজি দরে। মিশর থেকে আমদানি করা প্রতিকেজি পেঁয়াজ ১৭০ থেকে ১৮০ টাকা, মিয়ানমার থেকে আমদানি করা প্রতিকেজি পেঁয়াজ ১৮০ থেকে ১৯০ টাকা দরে।

এদিকে, রাজধানীর শ্যাম বাজার পাইকারি বাজারে দেশি প্রতিকেজি পেঁয়াজ আকারভেদে ১৭০ থেকে ১৯০ টাকা, মিয়ানমারের আকারভেদে ১৮০ থেকে ১৬০ টাকা, মিশরের পেঁয়াজ ১৪০ থেকে ১৫০ টাকা দরে প্রতিকেজি বিক্রি হচ্ছে। কারওয়ান বাজারে পাইকারি দেশি পেঁয়াজ প্রতিকেজি আকারভেদে ১৭০ থেকে ১৯০ টাকা, মিশরের  পেঁয়াজ ১৪৫ থেকে ১৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করতে দেখা গেছে।

ব্যবসায়ীদের দাবি, বাজারে চাহিদার তুলনায় পেঁয়াজের আমদানি কম। আগে প্রতিদিন ভারত থেকে ৩০০ ট্রাক পেঁয়াজ আসতো। বর্তমানে না আসায় দাম বাড়ছে। সরবরাহ বাড়লে আবারও দাম কমে যাবে বলে জানান এ ব্যবসায়ী।

তবে ক্রেতাদের অভিযোগ, বাজারে পেঁয়াজে কোনো অভাব না থাকলেও দিন দিন পণ্যটির দাম বেড়েই চলছে। সিন্ডিকেটের মাধ্যমে কারসাজি করে দাম বাড়ানো হচ্ছে বলে তাদের মত। এ অবস্থায় তারা নিয়মিত অভিযান চালানোর জন্য মত দিয়েছেন।