করোনায় মাঝেও মোংলা বন্দরে আয়ের রেকর্ড

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস যখন বিশ্ব অর্থনীতিতে লাগাম টেনে ধরছে, ঠিক তার উল্টো চিত্র মোংলা বন্দরের। এই বন্দরে কর্মমুখর প্রাণ চাঞ্চল্যে একটুও ভাটা পড়েনি। দেশের এ সমুদ্র বন্দরে জাহাজের আগমন সংখ্যা যেমন বাড়ছে, তেমনি অর্থনীতির চাকাও ঘুরছে।  করোনার ধাক্কায় অন্যান্য প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও স্বায়ত্বশাসিত এ প্রতিষ্ঠানটি এক মুহূর্তের জন্যও বন্ধ হয়নি।

গেল ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে এই বন্দরে জাহাজ এসেছিল ৯১২টি। করোনার শুরুর বছর ২০১৯-২০ অর্থ বছরে ৯০৩টি জাহাজ আসে। আর ২০২০-২১ অর্থ বছরের ৩১ মে পর্যন্ত জাহাজ আসে ৯১৩টি।

মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের উপ সচিব মাকরুজ্জামান মুন্সি বলেন, ২০১৮-১৯ অর্থ বছরের ৯১২ টি জাহাজ থেকে মোংলা বন্দরের আয় হয়েছে ৩২৯ কোটি ১২ লক্ষ এবং ২০১৯-২০ অর্থ বছরের ৯০৩ টি জাহাজ থেকে আয় হয়েছে ৩৩৮ কোটি ১৯ লক্ষ টাকা। আর ২০২০-২১ অর্থ বছরের ৩১ মে পর্যন্ত ৯১৩ টি জাহাজ আসলেও এর অর্থের হিসাব হবে আগামী ৩০ জুন। তবে চলতি অর্থ বছরে জাহাজ আগমনের সংখ্যা গেল দুই বছরের চেয়ে বেশি হওয়ায় আয়ও বেশি হবে বলে জানান বন্দর কর্তৃপক্ষ।  

মোংলা বন্দরের চেয়ারম্যান রিয়ার এ্যাডমিরাল মোঃ মুসা বলেন, করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবেবর ফলে সতর্কতা হিসেবে মোংলা বন্দর নানামুখী পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে দর্শণার্থী প্রবেশ সীমিতকরণ, অফিসে প্রবেশের ক্ষেত্রে তাপমাত্রা পরীক্ষা, বন্দরের অফিসসমূহে এবং বন্দর এলাকায় করোনার সতর্কীকরণমূলক চলাফেরা করার নির্দেশনা রয়েছে।

তিনি আরও বলেন, করোনার মধ্যেও বন্দরের কার্যক্রম সচল রাখতে মোংলা বন্দর কাস্টমস কর্তৃপক্ষ, ব্যাংক, শিপিং এজেন্ট, সিএন্ডএফ এজেন্ট, ষ্টিভিডর্স ও অন্যান্য বন্দর ব্যবহারকারীর সমন্বয়ে কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে।