আবরার হত্যা: ইবিতে মোমবাতি প্রজ্বলন করে প্রতিবাদ

বুয়েটের মেধাবী শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যার প্রতিবাদে, সন্ত্রাসমুক্ত নিরাপদ ক্যাম্পাসের দাবিতে বিক্ষোভে মিছিল ও মোমবাতি প্রজ্বলন করে প্রতিবাদ জানিয়েছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রগতিশীল ছাত্রসমাজ।

বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে ক্যাম্পাসে এসব কর্মসূচি পালন করে তারা।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থী সূত্রে জানাগেছে, সারাদেশে ছাত্রসমাজের আন্দোলনের অংশ হিসেবে ফাহাদ হত্যায় অভিযুক্ত সব আসামিকে বিচারের কাঠগড়ায় আনা, সন্ত্রাসমুক্ত নিরাপদ ক্যাম্পাস, টর্চার সেলমুক্ত হল এবং ভারতীয় সাম্রাজ্যবাদের বিরুদ্ধে ইবিতে আন্দোলনে নামে প্রগতিশীল ছাত্র সংগঠন ইবি শাখা ছাত্রমৈত্রী ও ছাত্র ইউনিয়ন ইবি সংসদ। সন্ধ্যায় ক্যাম্পাসের জিয়া হল মোড় থেকে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে শহীদ মিনারে শামিল হয় তারা। এ সময় মোমবাতি প্রজ্বলন করে প্রতিবাদ জানায় তারা। আবরারের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে এক মিনিট নীরবতা পালনও করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর ড. নাসির উদ্দীন আজহারী এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় বক্তারা বলেন, ঘটনার শুরু থেকে অমিত সাহার নাম শোনা গেলেও অদৃশ্য কারণে তাকে মামলার এজাহারভুক্ত করা হয়নি। আজ কুষ্টিয়ায় আবরারের ছোট ভাইকে পুলিশ লাঠিচার্জ করেছে, ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা দেশের বিভিন্ন স্থানে আন্দোলনকারীদের হুমকি-ধামকি দিচ্ছে। তারা হলগুলোতে টর্চার সেল বানিয়ে সাধারণ শিক্ষার্থীদের নির্যাতন করে। অবিলম্বে এগুলো বন্ধ করতে হবে। হলগুলোতে রাজনৈতিক সংগঠনগুলোর সহাবস্থান নিশ্চিত করতে হবে।

বক্তারা বলেন, ইবি থানার ওসি জাহাঙ্গীর আরিফ শিক্ষার্থীদের সাথে অসুলভ আচরণ এবং হুমকির স্বরে কথা বলায় আল্টিমেটামের ২৪ ঘন্টা পার হলেও তাকে কেন প্রত্যাহার করা হচ্ছে না? ক্যাম্পাস খুললে সাধারণ শিক্ষার্থীদের সাথে নিয়ে এব্যাপারে দূর্বার আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।

এদিকে কুষ্টিয়ার এএসপি মুস্তাফিজুর রহমানের নেতৃত্বে দিনভর প্রধান ফটকের বাইরে ইবি থানা ও কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত পুলিশকে সতর্ক অবস্থানে দেখা গেছে। ক্যাম্পাসের ভিতরেও গোয়েন্দা বাহিনীর নজরদারী লক্ষ্য করে গেছে।