তিন দাবি মেনে না নিলে ক্লাসে ফিরবেন না বুয়েট শিক্ষার্থীরা

আবরার ফাহাদ হত্যার পরিপ্রেক্ষিতে শিক্ষার্থীদের তিন দফা দাবি বাস্তবায়ন না হওয়া পর্যন্ত বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) একাডেমিক কার্যক্রম স্বাভাবিক হচ্ছে না।

গত মাসে শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডের পর থেকে একাডেমিক অসহযোগে রয়েছেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থীরা। আবরার হত্যা মামলার অভিযোগপত্র দাখিলের প্রতিক্রিয়ায় শিক্ষার্থীরা বলেছেন, বুয়েট প্রশাসন তাঁদের তিনটি দাবি মানলে তাঁরা ক্লাস-পরীক্ষায় ফিরে যাবেন।

বৃহস্পতিবার (১৪ নভেম্বর) বিকেলে বুয়েটের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের পাদদেশে এক সংবাদ সম্মেলনে একথা জানান কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ১৬ ব্যাচের শিক্ষার্থী অনিরুদ্ধ গাঙ্গুলি।

তিন দফা দাবি হলো- চার্জশিটের ভিত্তিতে অভিযুক্তদের স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা, আহসান উল্লাহ, তিতুমীর ও সোহরাওয়ার্দী হলের র‌্যাগের ঘটনায় অভিযুক্তদের অপরাধের মাত্রা অনুযায়ী শাস্তি দেওয়া; সাংগঠনিক ছাত্ররাজনীতি ও র‌্যাগের জন্য সুস্পষ্টভাবে বিভিন্ন ধাপে ভাগ করে শাস্তির নীতিমালা করে বুয়েটের একাডেমিক কাউন্সিল ও সিন্ডিকেট থেকে অনুমোদন করে বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্ডিন্যান্সে অন্তর্ভুক্ত করা।

অনিরুদ্ধ গাঙ্গুলী বলেন, বুয়েট প্রশাসনের সঙ্গে বারবার আলোচনার মাধ্যমে ও পর্যাপ্ত সময় দিয়ে বুয়েটে একটি সুস্থ ও সুন্দর পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে তাঁদের পক্ষ থেকে সর্বোচ্চ সহযোগিতা অব্যাহত থাকলেও প্রশাসনের পক্ষ থেকে সদিচ্ছা এবং পর্যাপ্ত পদক্ষেপের অভাব দেখছেন তাঁরা।

অনিরুদ্ধ বলেন, গত ২ নভেম্বর প্রশাসনের সঙ্গে আলোচনায় পরবর্তী এক সপ্তাহের মধ্যে দু’টি দাবি বাস্তবায়ন করার আশ্বাস দেয়। কিন্তু দুই সপ্তাহের মধ্যেও দাবিগুলো বাস্তবায়নে প্রশাসনের কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি।

সংবাদ সম্মেলনে থেকে জানানো হয়, দাবি মানা না হলে ক্লাস, টার্ম পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবেন না শিক্ষার্থীরা।

অপরদিকে ডিবির চার্জশিটের কপি পাওয়ার পর অভিযুক্তদের স্থায়ী বহিষ্কার ও তদন্ত রিপোর্ট প্রকাশ করা হবে বলে জানিয়েছেন ছাত্রকল্যাণ পরিচালক অধ্যাপক মিজানুর রহমান।