নুসরাতের গায়ে ম্যাচের কাঠি জ্বালিয়ে আগুন দেয় জোবায়ের

ফেনীর সোনাগাজীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি হত্যা মামলার অন্যতম আসামি সাইফুর রহমান ওরফে জোবায়ের আহম্মদ আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

রবিবার (২১ এপ্রিল) দুপুরে ফেনীর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শরাফ উদ্দিন আহম্মদের আদালত এই জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়।

জবানবন্দির পর সাংবাদিকদের কাছে ব্রিফ করেন পিবিআই এর চট্টগ্রাম বিভাগের স্পেশাল পুলিশ সুপার মো. ইকবাল। 

তিনি বলেন, জোবায়ের আদালতে স্বীকারোক্তি দিয়েছেন। তিনি ঘটনার দিন কিলিং মিশনে সরাসরি অংশগ্রহণ করে নুসরাতের গায়ে কেরোসিন ঢেলে ম্যাচের কাঠি জ্বালিয়ে আগুন দেন।

তিনি আরও বলেন, জবানবন্দিতে জোবায়ের এ হত্যার বিষয়ে আরও চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়েছেন। কিন্তু মামলার তদন্তের স্বার্থে তা উল্লেখ করা যাবে না।

এর আগে ১০ এপ্রিল জোবায়েরকে সোনাগাজী থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। ১১ এপ্রিল একই আদালত তাকে ৫ দিনের রিমান্ড দেয়। তিনি নুসরাতের সহপাঠী এবং সোনাগাজী পৌর শহরের তুলাতলি গ্রামের আবুল বাশারের ছেলে।

প্রসঙ্গত, গত ৬ এপ্রিল সকালে আলিম পরীক্ষা দিতে সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদরাসায় যান নুসরাত জাহান রাফি। সেখানে তার গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়। ১০ এপ্রিল (বুধবার) রাত সাড়ে ৯টায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে মারা যান অগ্নিদগ্ধ নুসরাত। পরদিন সকালে ময়নাতদন্ত শেষে মরদেহ স্বজনদের বুঝিয়ে দিলে বিকেলে সোনাগাজী পৌরসভার উত্তর চরচান্দিয়া গ্রামের পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।