মালয়েশিয়া থেকে ফেরার পরদিনই স্ত্রীর পরকীয়ার বলি স্বামী

যশোরের বেনাপোলে স্বামী জামাল হোসেনকে (৩৫) কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্ত্রী আয়েশার বিরুদ্ধে। মা-বাবার সহযোগিতায় আয়েশা এ হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে বলে অভিযোগ।

মঙ্গলবার (১৪ মে) রাতে জামালের নিজ বাড়ি পোর্ট থানার ধান্যখোলা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। জামাল ধান্যখোলা গ্রামের হবিবর রহমানের ছেলে।

এ ঘটনায় জামালের স্ত্রী আয়েশা খাতুন, শ্বশুর রিয়াজুল ইসলাম টুকু ও শাশুড়ি ফুলবুড়িকে আটক করেছে পুলিশ।

নিহতের বাবা হবিবার রহমান বলেন, আমার ছেলে প্রায় ১৫ বছর ধরে মালয়েশিয়া থাকে। একই গ্রামের রিয়াজুলের মেয়ে আয়েশার সঙ্গে প্রায় ১৫ বছর হলো তার বিয়ে হয়েছে। গত ১৫ বছরে আমার ছেলে মালয়েশিয়া থেকে মাত্র তিনবার বাড়ি এসেছে। আমার বাড়ির পাশে একটি বাড়ি করেছে ছেলে। সেখানে ছেলের বউ ও তার শ্বশুর-শাশুড়ি থাকে। ছেলে বাড়ি না থাকায় তার স্ত্রী এলাকার বিভিন্ন ছেলের সঙ্গে অবৈধভাবে চলাফেরা করতো। কারও কারও সঙ্গে সে মোটরসাইকেলে বাড়ি থেকে বের হয়ে দুই-তিন দিন পর বাড়িতে ফিরতো। গতকাল মঙ্গলবার বেলা ২টার দিকে মালয়েশিয়া থেকে বাড়ি আসে আমার ছেলে। একদিনের মধ্যে তাকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়।

কার সঙ্গে ছেলের বউ ঘুরতো জানতে চাইলে, নিরাপত্তার কারণ দেখিয়ে নাম বলতে চাননি তিনি।

বেনাপোল পোর্ট থানার ওসি শেখ আবু সালেহ মাসুদ করিম বলেন, নিহতের লাশ উদ্ধার করে যশোর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিনজনকে আটক করা হয়েছে। তাদের সঙ্গে আলাপ চলছে। কে বা কারা এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত তদন্ত সাপেক্ষে তা বলা যাবে।