কুপিয়ে গাড়িচালকের চোখ নষ্ট করল যুবলীগ নেতা

গাজীপুরের কাশিমপুরে আধিপত্য বিস্তার ও জমি নিয়ে দ্বন্দ্বে এক গাড়িচালককে কুপিয়ে জখম ও পিটিয়ে চোখ নষ্ট করে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে আশুলিয়া থানা যুবলীগের আহ্বায়ক কবির হোসেন সরকারের বিরুদ্ধে।

এ ঘটনার পর আশঙ্কাজনক অবস্থায় গাড়িচালক আলমকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। বুধবার দুপুরে এ ঘটনার পর রাতে গাড়ির মালিকের বড় ভাই আবিদ হোসেন সরকার লিমন বাদী হয়ে কাশিমপুর থানায় মামলা দায়ের করেন।

মামলায় যুবলীগের আহ্বায়ক কবির হোসেন সরকারকে প্রধান করে ৭ জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত ১০ জনকে আসামি করা হয়েছে।

আবিদ হোসেন সরকার লিমন জানান, যুবলীগ নেতা কবির হোসেন সরকারের সঙ্গে তার জমি সংক্রান্ত বিরোধ ছিল দীর্ঘ দিনের। বুধবার দুপুরে তিনি (আবিদ সরকার) তার ছোট ভাই সাইমুন সরকারের গাড়িচালক আলমকে নিয়ে সরকারবাড়ি এলাকায় মসজিদের নির্মাণ কাজ দেখছিলেন। এ সময় যুবলীগ নেতা কবির হোসেন সরকার, সালাউদ্দিন সরকার, সোহেল সরকারসহ প্রায় ১৫-১৮ জন লোক তাদের ওপর হামলা চালায়।

তিনি জানান, যুবলীগ নেতার লোকজন গাড়িচালক আলমের মাথায় কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে। তাদের লাঠির আঘাতে আলমের বাম চোখ নষ্ট হয়ে গেছে।

এক পর্যায়ে তাদের চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এলে যুবলীগ নেতারা ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাদেরকে উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় হাসপাতালে পরে গাজীপুর তাজ উদ্দিন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আহত আলম শুড়াবাড়ী এলাকার ফজলুর রহমানের ছেলে।আশুলিয়া থানা যুবলীগের আহ্বায়ক কবির হোসেন সরকারের মোবাইলে একাধিবার ফোন করলেও তিনি রিসিভ করেননি।

বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে কাশিমপুর থানার ওসি আকবর আলী খান বলেন, গাড়িচালককে কুপিয়ে জখম ও পিটিয়ে গুরুতর আহত করার ঘটনায় আশুলিয়া থানা যুবলীগের আহ্বায়ক কবির হোসেন সরকারসহ ১৮ জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারের জন্য অভিযান চলছে।