ধর্ষণে ব্যর্থ: বাস থেকে প্রবাসী নারীকে লাথি মেরে ফেলে দিল চালক

মানিকগঞ্জের ঘিওরে চলন্ত বাসে এক নারীকে ধর্ষণ চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে বাস থেকে ফেলে দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় বাসের চালক ও হেলপারকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার (১৪ জুন) রাতে ঢাকা-দৌলতপুর-টাঙ্গাইল আঞ্চলিক মহাসড়কে এ ঘটনা ঘটে।

গ্রেপ্তাররা হলেন- স্বপ্ন পরিবহনের চালক নায়েব আলী (৪০) ও হেলপার সোহাগ (২০)। চালকের বাড়ি মানিকগঞ্জের হরিরামপুর উপজেলায় এবং হেলপারের বাড়ি নাটেরের নলডাঙ্গায়।

জানা যায়, জর্ডান ফেরত ওই নারী শুক্রবার রাতে মানিকগঞ্জ বাসস্ট্যান্ড থেকে গ্রামের বাড়ি ঘিওরের উদ্দেশ্যে স্বপ্ন পরিবহনের একটি বাসে ওঠেন। রাস্তায় সকল যাত্রী নেমে গেলে বাসের লাইট বন্ধ করে দিয়ে চালক নায়েব আলী ও হেলপার সোহাগ তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন।

এ সময় ওই নারী চিৎকার-চেঁচামেচি করলে তাকে বাস থেকে লাথি মেরে ফেলে দেয়া হয়। বাসটি দ্রুত বেগে দৌলতপুরের দিকে চলে যায়। পরে দৌলতপুর থানা পুলিশের সহায়তায় চালক ও হেলপারকে গ্রেপ্তার করা হয়।

ঘিওর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আশরাফুল আলম বলেন, এ ঘটনায় ওই নারী বাদী হয়ে রাতেই ঘিওর থানায় মামলা করেন। আসামিদের রিমান্ড আবেদন করা হয়েছে।