ছেলেধরা সন্দেহে রোহিঙ্গা নারীকে গণপিটুনি

বান্দরবানে ছেলেধরা সন্দেহে রোকেয়া (১৮) নামে এক রোহিঙ্গা নারীকে গণপিটুনি দিয়েছে জনতা। আহত অবস্থায় পুলিশ ওই নারীকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে ভর্তি করেছে।

শুক্রবার দুপুরে জেলা সদরের লেমুঝিরি আগাপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, আগাপাড়া এলাকায় মাঠে গরু চড়াতে যাওয়ায় শুভ নামের এক ছেলে রোহিঙ্গা নারী কাছে ডাকে। অপরিচিত নারী ছেলেটিকে কাছে ডাকার বিষয়টি সে পরিবারের লোকদের বললে স্থানীয়রা রোহিঙ্গা নারীকে ধাওয়া করে। পালিয়ে যাবার সময় রোহিঙ্গা নারীকে গ্রামবাসী আটকিয়ে গণপিটুনি দিয়েছে।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আহত অবস্থায় রোহিঙ্গা নারীকে উদ্ধার করেছে। পরে চিকিৎসার জন্য পুলিশ তাকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করেছে।

স্থানীয় বাসিন্দার উজ্জল তঞ্চঙ্গ্যা বলেন, রোহিঙ্গা নারীটি কক্সবাজারের কুতুপালং শরণার্থী ক্যাম্প থেকে এসেছে। তার সঙ্গে আরও ৪ জন রয়েছে বলে রোহিঙ্গা নারী গণপিটুনির সময় এলাকাবাসীর কাছে স্বীকার করেছে। তবে আটক নারীর চিৎকার শুনে অন্যরা পালিয়ে যায়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সদর থানার ওসি শহিদুল ইসলাম চৌধুরী জানান, সদরের লেমুঝিড়ি আগাপাড়া এলাকায় ছেলেধরা সন্দেহে এক নারীকে আটক করা হয়েছে। গণপিটুনিতে আহত নারীকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সুস্থ হওয়ার পর তাকে জিজ্ঞাসাবাদের পর বিস্তারিত নিশ্চিত হওয়া যাবে।