বগুড়ায় স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ কৃষকলীগ নেতার বিরুদ্ধে

বগুড়ার নন্দীগ্রামে স্ত্রী ময়ুরী বেগমকে (২৬) পিটিয়ে হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে স্বামী কৃষকলীগ নেতা মাসুদ রানার বিরুদ্ধে। তবে পুলিশের ধারণা আত্মহত্যা করেছে ময়ুরি।

শনিবার রাতে উপজেলার পৌর শহরের কলেজপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে রবিবার সকাল ৯টায় নন্দীগ্রাম থানা পুলিশ ময়ুরীর লাশ উদ্ধার করে।

এ ঘটনার পর থেকে ময়ুরীর স্বামী নন্দীগ্রাম পৌর কৃষকলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাসুদ রানা ও তার বাবা উপজেলা কৃষক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ওসমান ফকিরসহ পরিবারের সবাই পলাতক রয়েছে।

নিহত ময়ুরীর বাবা আনোয়ার হোসেন বলেন, মাসুদ রানার পরকীয়া নিয়ে তার স্ত্রীর সঙ্গে দাম্পত্য কলহ চলছিল বেশ কিছুদিন ধরে। শনিবার দিবাগত রাতে তাদের মধ্যে ঝগড়া হলে মাসুদ ফোন করে আমাকে বলে, রাতেই তোর মেয়েকে মেরে ফেলব। রবিবার সকালে খবর পেয়ে এসে দেখি মেয়ের লাশ।

নন্দীগ্রাম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শওকত কবির বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে সুরতাহল রিপোর্ট করে লাশ মর্গে পাঠিয়েছি। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে  আত্মহত্যা। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট হাতে পেলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।